মেইন ম্যেনু

বাঁচার জন্য বৃষ্টি প্রার্থনায় ভারতীয়রা!

টেস্টে বৃষ্টি নিয়ে বাংলাদেশিদের দিকে কম তির ছোড়েনি ভারতীয় সমর্থকেরা। বৃষ্টি বাংলাদেশকে বাঁচিয়ে দিয়েছে, হ্যানোত্যানো কত কী! ভারতীয় সাংবাদিকেরাও ‘পবন​ দেবে’র আশীর্বাদের কথাটা ঠারেঠোরে লিখেছেন বেশ।

এবার সেই ভারতীয়রাই প্রার্থনা করছে—এই পথ যেন শেষ না হয়। মানে এই বৃষ্টির পথচলা যেন শেষ না হয়। ওয়ানডে র‍্যা​ঙ্কিংয়ের দুই নম্বরে থাকা ভারত যে প্রথম দুই ম্যাচ হেরেই সিরিজ হারের লজ্জার সামনে। টুইটারে​ ভারতীয়দের টুইট দেখে মনে হচ্ছে, প্রকৃতির কাছে সবাই যেন সম্মিলিত প্রার্থনায় নেমেছেন! ৮ উইকেটে ১৯৬ তুলে ভারত যে ধুঁকছিল।

কিন্তু ভারতীয় সমর্থদের জন্য কোনো সুখবর নেই। সোয়া আটটায় শুরু হয়ে গেছে খেলা। আর ৪ রান যোগ করে শেষ দুটো উইকেটও হারিয়েছে তারা। অবশ্য ৫০ ওভার থেকে ৪৭ ওভারে নেমে এসেছে ম্যাচ। কারণ বৃষ্টির জন্য হাতে ধরে রাখা এক ঘণ্টারও বেশি খরচ হয়ে গেছে। এক ঘণ্টার মধ্যে খেলা শুরু হলে ওভার কাটতে হতো না। কিন্তু ওভার যেহেতু কাটা হলো, তার মানে দুই ইংলিশ সাহেব ডাকওয়ার্থ-লুইস এই ম্যাচে ‘নাক গলাতে’ যাচ্ছেন। ৪৭ ওভারে ২০০ রান তুললেই সিরিজ জিতবে বাংলাদেশ।

তবে ম্যাচে আবারও বৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাংলাদেশকে হিসেব কষে ব্যাটিং করতে হবে। আবার বৃষ্টির বাধা বাংলাদেশের উইকেটের পতন আর রান তোলার হারে প্রভাবিত হবে ডি/এলের নতুন লক্ষ্য। কমপক্ষে ২০ ওভার হলেও আজই শেষ হয়ে যাবে খেলা। এমনকি আজ ২০ ওভার না হতে পারলেও আগামীকাল রিজার্ভ ডেতে হবে খেলার বাকি অংশ।

ফলে ভারতীয়দের বৃষ্টির প্রার্থনায় আসলেই কোনো কাজ হবে না, যদি না বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা বড় কোনো ভুল করে বসেন। তবে প্রার্থনা করতে তো ক্ষতি নেই। বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা করে টুইট-রিটুইটের বৃষ্টি।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) অফিশিয়াল টুইটার আইডিতে ভারতীয় সমর্থকদের এমন সব কমেন্টই চোখে পড়ছে। ভারতীয় সমর্থক তাভিতা বলেন, ‘বৃষ্টি, বৃষ্টি চলে যেয়ো না। ভারতীয়রা খেলতে চাচ্ছে না।’ আরেক ভারতীয় সাম্পাঙ্গি বলেন, ‘আশা করছি বৃষ্টি অনেকক্ষণ থাকবে যাতে করে আমরা যেন না হারতে পারি ম্যাচটি।’ প্রণব বোদানি অবশ্য বাকিদের মনে করিয়ে দিতে চাইছেন, এই ম্যাচে ভারতের হারই নাকি নিয়তি। বৃষ্টি বড়জোর যেটা করতে পারে, সেই হার প্রলম্বিত করা।

এমন আরও অনেক মন্তব্যের দেখা মিলছে সেখানে। তবে শুধু যে বৃষ্টি নিয়েই ভারতীয়রা টুইট করছে, এমন নয়। বৃষ্টি না-থামার প্রার্থনার পাশাপাশি মুস্তাফিজকে প্রশংসার বৃষ্টিতে ভাসাচ্ছেন অনেকে। আদিয়া নারাইন টুইট করেছেন ‘দুই ম্যাচে দুবার পাঁচ উইকেট পেল মুস্তাফিজুর। সত্যিই অসাধারণ পারফরম্যান্স এই ১৯ বছরের তরুণের।’

5e20af28e876be9abea73af1d2d98735-13

আর নিজের দল নিয়ে লিখতে গিয়ে বৃষ্টি নয়, সমালোচনার ঝড় কিংবা সাইক্লোন বইয়ে দিচ্ছেন তাঁরা। ধোনির অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। পাশাপাশি রাহানেকে বাদ দিয়ে রাইডুকে নামানো নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। এমনকি বাদ যাননি বিরাট কোহলিও। সর্বশেষ ১৪ ইনিংসে কোহলি যে একবার পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলেছেন, মনে করিয়ে দেওয়া হচ্ছে সেটাও।

ভারতীয় সমর্থকেরা এখন একটাই প্রার্থনা করতে পারেন, আজ তো বটেই, আগামীকালও যেন চেরাপুঞ্জি হয়ে ওঠে মিরপুর!






মন্তব্য চালু নেই