মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশকে বাদ দিতেই ত্রিদেশীয় সিরিজের পরিকল্পনা?

ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিতে ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে খেলা নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। গোটা বাংলাদেশে তাই এখন স্বস্তির হাওয়া। তবে অস্বস্তির খবর হচ্ছে, আচমকাই আগস্টে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে নিয়ে একটি ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ আয়োজনের পরিকল্পনা করছে জিম্বাবুয়ে!

২০১৭ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে অনুষ্ঠিত হবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। এ বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আটটি দল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলবে। আয়োজক দেশ হিসেবে সরাসরি খেলার সুযোগ পাচ্ছে ইংল্যান্ড। ইংলিশদের সঙ্গে র‍্যাঙ্কিংয়ের সর্বোচ্চ পর্যায়ে থাকা বাকি সাতটি দল এই টুর্নামেন্টে অংশ নেবে।

বাংলাদেশ, পাকিস্তান আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে আসন্ন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশ নেওয়ার লড়াই চলছিল। বাংলাদেশের জন্য সমীকরণ ছিল, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ছয়টি ওয়ানডের মধ্যে দুটি জিতলেই চ্যাম্পিয়নস ট্রফি নিশ্চিত হবে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের আগেই ভারতের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে র‍্যাঙ্কিংয়ের সাত নম্বরে উঠে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলা নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ।

শেষ দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন ট্রফিতে জায়গা করে নিতে লড়াইটা হওয়ার কথা ছিল র‍্যাঙ্কিংয়ের আট ও নয় নম্বরে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের মধ্যে। আগামী মাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ রয়েছে পাকিস্তানের। এরপর আগস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে তারা।

সেপ্টেম্বরের আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোনো ওয়ানডে সিরিজ ছিল না। কিন্তু আগস্টে জিম্বাবুয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের পরিকল্পনা করে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ওয়ানডে খেলার সুযোগ করে দিতে যাচ্ছে। আর এতে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে খেলা কিছুটা ‘অনিশ্চয়তায়’ পড়ে গেল। এমন অবস্থায় প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি বাংলাদেশকে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি খেলতে না দিতেই আচমকা এই ত্রিদেশীয় সিরিজের পরিকল্পনা?

আয়োজক জিম্বাবুয়ে এরই মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ত্রিদেশীয় এই সিরিজ খেলতে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। যদিও এখনো সব কিছু চূড়ান্ত হয়নি। এ ব্যাপারে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘সম্প্রতি আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করেছি। ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। তবে এখনো কিছুই চূড়ান্ত হয়নি।’

আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, বাংলাদেশ ৯৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে অবস্থান করছে। আটে রয়েছে ৮৮ রেটিং পয়েন্ট পাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আর নয় নম্বরে রয়েছে ৮৭ রেটিং পয়েন্ট পাওয়া পাকিস্তান। অর্থাৎ, আলোচিত ত্রিদেশীয় সিরিজ অনুষ্ঠিত হলে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ- দুই দলই রেটিং বাড়ানোর সুযোগ পাবে।

তথ্যসূত্র : ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ডটকম।






মন্তব্য চালু নেই