মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশকে ভয় পাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকাও!

উপমহাদেশের দুই পরাশক্তিকে আকাশ থেকে টেনে মাটিতে নামিয়ে এনেছে বাংলাদেশ। দারুণ ধারাবাহিক একটি দলে পরিণত হয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। পাকিস্তানকে ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করার পর ভারতকেও হোয়াইটওয়াশের পথে বাংলাদেশ। একঝাঁক তরুন এবং অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের সমন্বয় ঘটেছে এই দলটিতে। যারা খেলছে ভয়-ডরহীনভাবে। মাটিতে নামিয়ে আনছে ক্রিকেটের পরাশক্তিদের। এমন বাংলাদেশকে দেখে কি না এবার ভয় ধরেছে দক্ষিণ আফ্রিকানদের মনেও।

জুলাইর প্রথম সপ্তাহেই প্রোটিয়াদের বিপক্ষে শুরু হবে বাংলাদেশের হোম সিরিজ। দুটি টি২০, তিনটি ওয়ানডে এবং ২টি টেস্ট দিয়ে সাজানো পূর্ণাঙ্গ এই সিরজটি। ৫ জুলাই টি২০ দিয়ে শুরু হবে এই সিরজটি।

বৃষ্টির কারণে ভারতের সঙ্গে একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি ড্র করার পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুটিতেই ভারতকে রীতিমত বিধ্বস্ত করেছে মাশরাফি বাহিনী। এক ম্যাচ হাতে রেখেই প্রথমবারেরমত ভারতের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। হোম কন্ডিশনে ভয়ঙ্কর হয়ে ‍ওঠা দলটির দিকে তাকিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক পেসার এবং বর্তমানে ইস্টার্ন কোচ আন্দ্রে নেল বেশ সতর্কবার্তা উচ্চারণ করেছেন ডি ভিলিয়ার্সদের উদ্দেশ্যে।
সাবেক প্রোটিয়া পেসার আন্দ্রে নেল

আন্দ্রে নেল প্রোটিয়া টিম ম্যানেজমেন্টকে সতর্ক করে বলে দিলেন, এই বাংলাদেশ ওয়ানডেতে বেশ ভয়ঙ্কর। বিশেষ করে নিজেদের মাটিতে। পাকিস্তান এবং ভারতের মত শক্তিশালি দলকে হারিয়েছে তারা। সুতরাং, সেখানে সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে নিজেদের প্রস্তুতিটা যেমন বেশ ভালো হওয়া প্রয়োজন, তেমনি পূর্ণ শক্তির দলও সেখানো পাঠানো দরকার।’

বাংলাদেশ সফরে প্রোটিয়ারা ডি ভিলিয়ার্স, হাশিম আমলা, ফ্যাফ ডু প্লেসিস এবং জেপি ডুমিনির মত খেলোয়াড়রা টি২০ এবং ওয়ানডে দলে থাকলেও, থাকছেন না ডেল স্টেইন এবং ভারনন ফিল্যান্ডারের মত পেসাররা। পরিবর্তে প্রোটিয়া পেস আক্রমণের দায়িত্বে থাকবেন মরনে মর্কেল, কাইল অ্যাবট এবং রায়ান ম্যাক্লারেনরা।

আন্দ্রে নেল মনে করেন, ডেল স্টেইন আর ভারনন ফিল্যান্ডারের না থাকার অর্থ প্রোটিয়াদের বোলিং আক্রমণের ধার কমে যাওয়া। তিনি বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকা টিম ম্যানেজমেন্ট বাংলাদেশের সফরের জন্য যে দল গঠন করেছে সেটা পূর্ণ শক্তির নয়। খর্ব শক্তির। ফলে বাংলাদেশ সফরে বিপদে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাদের।

সাবেক প্রোটিয়া এই পেসার বলেন, ‘বাংলাদেশ দলটি অভিজ্ঞ ও তরুন ক্রিকেটারে দারুণ সমন্বিত একটি দল। যারা অসাধারণ পারফরম্যান্স করে যাচ্ছে সাম্প্রতিক সময়ে। কিন্তু ভয়ের বিষয় হলো, দক্ষিণ আফ্রিকা দলটি বাংলাদেশকে সম্ভবত খুব বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে না। যে কারণে তারা, কিছুটা দুর্বল পাঠাতে যাচ্ছে বাংলাদেশে।’

বাংলাদেশ নিয়ে শঙ্কা এবং সম্ভাবনার কথা জানিয়ে আন্দ্রে নেল বলেন, ‘যদি বাংলাদেশ ওয়ানডে সিরিজে ভারতের পর দক্ষিণ আফ্রিকাকেও হারিয়ে দেয়, তাহলে নিশ্চিত প্রমান হবে- ক্রিকেটের এই ভার্সনে তারা কতটা ভয়ঙ্কর হিসেবে উঠে এসেছে। সব সময়ই জিম্বাবুয়ের সঙ্গে বাংলাদেশের তুলনা হয়ে থাকে। সম্ভবত এবার সময় হয়েছে- এই তুলনা থেকে তাদের বেরিয়ে আসার।’






মন্তব্য চালু নেই