মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশিদের জন্য মালয়েশিয়া ভ্রমণে খরচ বেড়েছে

১ আগস্ট থেকে মালয়েশিয়া ভ্রমণে ২ হাজার টাকা করে খরচ বেড়েছে বাংলাদেশিদের জন্য। ঢাকাস্থ মালয়েশিয়া দূতাবাস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, গত ১ আগস্ট থেকে রেফারেন্স ছাড়া ভিসা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ হাজার ৪০০ টাকা। এর আগে ছিল ৩ হাজার ৪০০ টাকা। সাধারণত বাংলাদেশি পর্যটকরা এ ধরনের ভিসায় মালয়েশিয়া ভ্রমণে যান।

অন্যদিকে রেফারেন্সসহ ভিসার ফিও ৫ হাজার ৪০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। বিজনেস ট্রাভেলাররা এ ভিসায় মালয়েশিয়া যান।

প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়া সরকার প্রধানত দু’ধরনের ভিসা দিয়ে থাকে। এর মধ্যে প্রথমটি হলো রেফারেন্স ছাড়া ভিসা (বি ডব্লিউ টি আর)। বিভিন্ন দেশে মালয়েশীয় মিশন থেকে এ ধরনের ভিসা ইস্যু করা হয়। এ ভিসার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১৪ দিন অবস্থানের অনুমতি দেয়া হয়। মেয়াদ বৃদ্ধির কোনো সুযোগ নেই।

এছাড়া ভিসার জন্য আবেদন করার আগেই ভ্রমণকারীকে ফেরার টিকিট কাটতে হবে। তবে মালয়েশিয়া ভ্রমণের পর অন্য দেশে যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলে সে দেশে যাওয়ার ফ্লাইটের টিকিট থাকলে হবে।

দ্বিতীয়ত, রেফারেন্সসসহ দেয়া ভিসা (বি ডব্লিউ আর)। মালয়েশীয় ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টের অনুমোদনের মাধ্যমে এ ভিসা ইস্যু করা হয়। মালয়েশিয়া প্রবেশের আগেই মালয়েশিয়ান কনস্যুলেট বা দূতাবাস থেকে এ ভিসা সংগ্রহ করতে হবে।

কেবল ব্যবসা ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত ক্ষেত্রে এই ভিসা ইস্যু করা হয়। ভ্রমণটি মালয়েশীয় কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে স্পন্সর করতে হবে। যে প্রতিষ্ঠান স্পন্সর করবে সেটি অবশ্যই একটি প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান হতে হবে এবং ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টে ফর্ম ৯, ২৪ এবং ৪৯ জমা দিতে হবে।

এ ভিসার আবেদন করতে স্পন্সরকে জনপ্রতি দুই হাজার মালয়েশীয় রিঙ্গিত জামানত হিসেবে জমা দিতে হবে। ভ্রমণকারী মালয়েশিয়ায় সর্বোচ্চ ৩০ দিন অবস্থান করতে পারবেন এবং মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ নেই।






মন্তব্য চালু নেই