মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশের অনুরোধে নয়টি অ্যাকাউন্ডের তথ্য দিয়েছে গুগল

গত বছরের শেষ ছয় মাসে বাংলাদেশ সরকারের দুই দফায় সাত অনুরোধে নয়টি আকাউন্টের তথ্য দিয়েছে গুগল। বাংলাদেশ সরকারের যে চার অনুরোধে তথ্য দেয়া হয়েছে, এগুলোকে গুগল বলছে, ‘ইমারজেন্সি ডিসক্লোজার রিকোয়েস্ট’।

গত সোমবার গুগলের ট্রান্সপারেন্সি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। গুগলের কাছে তথ্য চেয়ে বিভিন্ন দেশের সরকার থেকে যে অনুরোধ পাঠানো হয়, তা জনগণকে জানাতে প্রতিবেনটি প্রকাশ করে গুগল। খবর এএফপির।

রিপোর্ট থেকে জানা যায়, গতবারই প্রথমবারের মতো অনুরোধ যায় বাংলাদেশের সরকার থেকে। সেই অনুরোধে সাড়াও দেয় গুগল। গত বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট দুবার গুগলকে অনুরোধ জানানো হয়। প্রথম দফায় তিনটি অনুরোধে চারটি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়। কিন্তু তা দেয়নি গুগল। দ্বিতীয দফায় চারটি অনুরোধে নয়টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়, যা গুগল বাংলাদেশকে সরবরাহ করে। এই চারটি অনুরোধকে ‘ইমারজেন্সি ডিসক্লোজার রিকোয়েস্ট’ বলছে গুগল। প্রথম দফার তিনটি রিকোয়েস্ট ছিল ‘লিগাল রিকোয়েস্ট’।

গুগলের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালের শেষ ছয় মাসে বিভিন্ন দেশের সরকারের কাছ থেকে ৪০ হাজার ৬৭৭টি অনুরোধে ৮১ হাজারের বেশি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়। ২০১৫ সালের প্রথম ছয় মাসে ৩৫ হাজার অনুরোধে ৬৯ হাজার অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়েছিল। তবে ৬৪ শতাংশ ক্ষেত্রে কোনো তথ্য সরবরাহ করা হয়নি।

গুগলের প্রতিবেদন অনুয়ায়ী, তথ্য চাওয়ার দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে যুক্তরাষ্ট্র। ১২ হাজার ৫২৩ অনুরোধ করেছে দেশটি। দ্বিতীয় অবস্থানে জার্মানি- ৭ হাজার ৪৯১ অনুরোধ করে দেশটি।






মন্তব্য চালু নেই