মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে ভালোবেসে টাইগার প্রেমিক আল আমীন কি করেছে দেখুন!

আল আমীন, কেউ বলে পাগল আবার কেউ বলে ক্রিকেট প্রেমিক। জন্ম তার কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার মধ্যপাড়া গ্রামে। পেশায় একজন মাইক্রোবাস ড্রাইভার। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে উৎসাহ জোগাতে ও ক্রিকেট খেলাকে আরো জনপ্রিয় করাতে তিনি বেছে নেন এক ভিন্নধর্মী কৌশল। তার নিজ বাসায় তৈরি করেন এক ক্রিকেট ফটো জাদুঘর।

২০০৭ সাল থেকে আল আমিন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সব খেলার ছবি দিয়ে বানান তার ফটো জাদুঘর। শুধু তাই নয় ১৯৯৭ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের যত খেলা হয়েছে ওই সব খেলার ফলাফল, খেলোয়াড়ের নাম, কে কোন দলের সঙ্গে জয়ী হয়েছেন বা হেরেছেন তা নিমিষেই বলে দিতে পারেন আল আমীন।

২০০৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত ক্রিকেটের সব খবরের পত্রিকার কাটিং নিজ ঘরে আঠা দিয়ে লাগিয়ে তৈরি করেছেন এক বিশাল জাদুঘর। জাদুঘরটির নাম রেখেছেন ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান বাংলাদেশ ক্রিকেট ফটোক্লাব’।

তিনি প্রতিদিন পত্রিকা কিনে অথবা কারো কাছ থেকে চেয়ে ক্রিকেটের সংবাদটি মনোযোগ সহকারে পড়েন এবং সেই খবরের কাটিং ঘরে লাগিয়ে থাকেন। এ পর্যন্ত তার ঘরে প্রায় ৬০ হাজারেরও বেশি খবর স্থান পেয়েছে। আল আমীনের এসব কর্মকাণ্ডে খুশি হয়ে সম্প্রতি স্থানীয় এমপি অ্যাডভোকেট মো. সোহরাব উদ্দিন এ জাদুঘরটি ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন। প্রতিদিনই ভিন্ন ধর্মী এই জাদুঘরটি দেখতে আসেন অনেকে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, বর্গাচাষী মো. ফিরোজ মিয়ার ছেলে আল আমিন ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন। পড়ালেখার পাঠ চুকিয়ে হতে চেয়েছিলেন একজন ক্রিকেটার। এখন তার ধ্যান-জ্ঞান-স্বপ্ন সবই ক্রিকেটকেন্দ্রিক। শুধু কথায় নয়, প্রিয় দল বাংলাদেশের জার্সিও গায়ে পরে থাকেন সারাক্ষণ।

খেলার পাতায় যে খবরগুলো তার ভালো লাগে, সেগুলো কেটে রেখে দেন। পরে এগুলো বাসার টিনের বেড়ায় আঠা দিয়ে লাগিয়ে রাখেন। এভাবে পত্রিকার কাটিংয়ে ঘরের বেড়াগুলো ভরে গেছে। ঘরে আর জায়গা নেই। পরে ঘরে থাকা টিভি, শোকেজ, গ্লাস, জগ ও খাবারের প্লেটেও পত্রিকার কাটিং লাগিয়েছেন তিনি। ঘরে আর কোথাও লাগানোর জায়গা না থাকায় পত্রিকার অনেক কাটিং জমা হয়েছে বলে জানান আল আমীন।

এ প্রসঙ্গে আল আমিন বলেন, ‘ছোটবেলা থেকে আমি ক্রিকেট ভালোবাসি। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে উৎসাহ জোগাতেই আমার এ কাজ। মা-বাবা এ নিয়ে আমাকে প্রায়ই গাল-মন্দ করতো। আর মানুষ প্রথমে আমাকে পাগল বলত। কিন্তু তারপরও আমি থেমে থাকিনি। একটু একটু করে তৈরি করেছি আমার এই ফটো জাদুঘর।‘

ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে উৎসাহ দিতে আরো অনেক কিছুই করতে চান আল আমিন। ক্রিকেটে বাংলাদেশ বিশ্ব সেরা হবে সেটাই তার একান্ত চাওয়া।-পরিবর্তন






মন্তব্য চালু নেই