মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশের জয়ে ফেরার লড়াই আজ

শুরুটা হয়েছে হতাশার। এশিয়া কাপে প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জই জানাতে পারেনি বাংলাদেশ, হেরে গেছে বড় ব্যবধানে। প্রথম ম্যাচে হারের ধাক্কা সামলে উঠতে বাংলাদেশ এবার প্রতিপক্ষ হিসেবে পাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে। আইসিসির সহযোগী দেশটির বিপক্ষে ম্যাচটি দিয়েই টুর্নামেন্টে জয়ে ফিরতে চায় মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

শুক্রবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-আমিরাত ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। সরাসরি দেখাবে গাজী টিভি, বিটিভি ও স্টার স্পোর্টস-১।

ভারতের বিপক্ষে বোলিংয়ে ভালো শুরুর পরও সেটা ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। বোলিংয়ের মূল ভরসা যে মুস্তাফিজুর রহমান, সেই তিনিই ছিলেন নিষ্প্রভ। শিশিরের জন্য বল গ্রিপ করতে না-পারায় নিজের সেরা অস্ত্র (কাটার) সেভাবে ব্যবহার করতে পারেননি তরুণ এই পেসার। টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মতো ৪ ওভারে ৪০ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য।

প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের ব্যাটিংটাও ছিল নড়বড়ে। ১৬৭ রান তাড়া করতে নেমে একমাত্র সাব্বির রহমান ছাড়া আর কেউই দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারেননি। টুর্নামেন্টের সবচেয়ে দুর্বল দল আমিরাতের বিপক্ষে আজ মুস্তাফিজের সঙ্গে তাই ব্যাটসম্যানদেরও জ্বলে ওঠার চ্যালেঞ্জ।

অভিজ্ঞতায় আজকের ম্যাচে বাংলাদেশই পরিষ্কার ফেবারিট। তবে আমিরাতকে মোটেই হালকাভাবে নিচ্ছে না স্বাগতিকরা। ম্যাচের আগের দিন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘ক্রিকেট খেলা, হতে পারে যে কোনো কিছুই। ভারতের বিপক্ষে আমরা যেভাবে পরিকল্পনা করেছি, ঠিক একই রকম সমান গুরুত্ব দিয়ে আমাদের মাঠে নামতে হবে আরব আমিরাতের বিপক্ষেও। এই ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জন্য।’

আন্তর্জাতিক ম্যাচে এর আগে একবারই মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ-আমিরাত। ২০০৮ সালে এই এশিয়া কাপেই লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ৩০০ করে বাংলাদেশ ম্যাচ জিতেছিল ৯৬ রানে। সেবার ম্যাচটা ৫০ ওভারের হলেও এবার টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে।

আর আমিরাত এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলছে বাছাইপর্বের সেরা দল হয়ে। চূড়ান্ত পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাও কাঁপিয়ে দিয়েছে তারা। জয়ে ফিরতে আমিরাতের বিপক্ষে তাই ব্যাটে-বলে নিজেদের সেরাটাই খেলতে হবে মাশরাফি-সাকিব-মুশফিকদের।






মন্তব্য চালু নেই