মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশ দাতা রাষ্ট্রে পরিণত হবে : ডাচ রানি

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এখন পৃথিবীর অনেক দেশের জন্য রোল মডেল।

গত এক দশক ধরে দেশটির জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ছয় শতাংশর ওপরে থাকায় ক্রমেই অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছে।

পোশাক খাত ছাড়াও ওষুধ রপ্তানি করে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে অসাধারণ দক্ষতা দেখিয়েছে গত কয়েক দশক ধরে। অর্থনৈতিক উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ কয়েকবছরের মধ্যেই দাতা রাষ্ট্রে পরিণত হবে।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন বা পিকেএসএফের গোলটেবিল বৈঠক শেষে ডাচ রানি ম্যাক্সিমা জরিগুয়েতা সেরুতি এ কথা বলেন।

তিন দিনের সফরে সোমবার সকালে বাংলাদেশে এসেছেন নেদারল্যান্ডসের রানি ম্যাক্সিমা।

পিকেএসএফের আগে তিনি ঢাকার জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) কার্যালয় পরিদর্শন করেন সেখানে একটি বৈঠকে অংশ নেন। বিকেলে পিকেএসএফের গোল টেবিল বৈঠকে শেষ করে ফিরে যান হোটেল সোনারগাঁওয়ে। সেখানে তিনি আরও একটি বৈঠকে অংশ নেবেন। এছাড়া সোমবার তার হোটেলের বাইরে কোনো কর্মসূচি নেই বলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে।

জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সবার জন্য অর্থনৈতিক সেবার সচেতনতা বাড়ানোই ডাচ রানির এ সফরের উদ্দেশ্য। সফরে রানি ম্যাক্সিমা রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্ভনর ড. আতিউর রহমানসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

এর বাইরে সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, বেসরকারি খাত ও উন্নয়ন সহযোগী অংশীদারদের সঙ্গেও তার বৈঠকের কথা রয়েছে। পাশাপাশি ঢাকার বাইরে গাজীপুরে সফরের কথাও রয়েছে রানির। তবে নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে গাজীপুর সফরের বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত করা হয়নি বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র।

বুধবার (১৮ নভেম্বর) বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করে জাতিসংঘের এই বিশেষ দূতের সফরের বিভিন্ন দিক তুলে ধরবে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি বা ইউএনডিপি। ওই রাতেই ঢাকা ছাড়বেন ম্যাক্সিমা।






মন্তব্য চালু নেই