মেইন ম্যেনু

বাকি রইলো একটি ধাপ…

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধীদের মূলহোতা ও জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ হওয়ার মধ্যদিয়ে এই আল বদর কমাণ্ডারের চূড়ান্ত বিচারিক প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে।ফাঁসির দড়িতে ঝোলানোর আগে নিজামীকে এখন রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

অ্যাটর্নী জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, রিভিউ আবেদন খারিজের কপি কারাগারে যাওয়ার পর সরকারের নির্দেশে ফাঁসি কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু হবে। তবে তার আগে রায়ের কপি প্রকাশ হতে হবে।রিভিউ খারিজের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হওয়ার পর রায়ের কপি কারাগারে পাঠানো হবে।এবং কারাকর্তৃপক্ষ নিজামীকে আনুষ্ঠানিকভাবে রিভিউ খারিজের বিষয়টি অবহিত করবেন এবং এর পরই ক্ষমার আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে অ্যাটর্নী জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, এর আগে অন্যান্যদের বেলায় আমি রিভিউ খারিজের সংক্ষিপ্ত রায় দেয়ার আবেদন করেছিলাম এবং আদালত তা মানেনি। ফলে নিজামীর বেলায় আমি আর সংক্ষিপ্ত রায় চাইনি। রাষ্ট্রের এই সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা বলেন, এখন ফাঁসি কার্যকরের আগে বা প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করবেন কী করবেনা সে সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে রিভিউর রায় প্রকাশ হতে হবে। তার পরই সেই প্রক্রিয়াটি শুরু হবে।

রায়ের পর অ্যাটর্নী জেনারেল বলেন, আমরা সবাই জানি স্বাধীনতার দুদিন আগে বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করার জন্য যে বাহিনীকে দায়ী করা হয়ে থাকে তার মূল হোতা হচ্ছে মতিউর রহমান নিজামী। এই কুখ্যাত অপরাধীর ফাঁসির রায় বহাল থাকার জাতির সঙ্গে আমরাও স্বস্তি পাচ্ছি।






মন্তব্য চালু নেই