মেইন ম্যেনু

বাজার অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

সরকার দুলাল মাহবুব, রাজশাহী থেকে : রাজশাহী নগরীতে বাজার অভিযানে চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

রাজশাহী জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে নানা অব্যবস্থাপনার অভিযোগে এসব জরিমানা আদায় করেন।

দুপুরের দিকে নগরীর সাহেববাজার ও কুমারপাড়া এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এতে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্যামল কুমার পাল। অভিযানে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, বিএসটিআই ও নগর পুলিশের কর্তারাও অংশ নেন।

আদালণত সূত্র জানায়, দুপুরে নগরীর আলুপট্টি এলাকায় অবস্থিত অভিজাত মিষ্টি বিক্রেতা নবরুপ মিষ্টান্ন ভান্ডারের কারখানায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় খাবার অযোগ্য বিপুল পরিমান দই জব্দ করা হয়। বিক্রির উদ্দেশ্যে এসব দই ফ্রিজে সংরক্ষণ করছিলো প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়া অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাদ্যপণ্য উৎপাদন ও বিক্রির জন্য সংরক্ষণেরও প্রমান পায় ভ্রাম্যমান আদালত।

এনিয়ে প্রতিষ্ঠানটির সত্ত্বাধিকারী নব কুমার ঘোষকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে দেয়া হয় ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদ-। তবে তাৎক্ষনিকভাবে জরিমানা পরিশোধ করে মুক্তি পান নবকুমার। পরে জব্দকৃত প্রায় ২০ হাজার টাকা মূল্যের খাবার অযোগ্য দই প্রকাশ্যে ধ্বংস করা হয়।

ওই অভিযানে নগরীর সাহেববাজার এলাকার মিষ্টি বাজারকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। প্রতিষ্ঠানটি বিএসটিআইয়ের মানসনদ না নিয়েই বিভিন্ন খাদ্যপণ্য উৎপাদন ও বিক্রি করে আসছিলো এনিয়ে অনাদায়ে প্রতিষ্ঠানটির মালিক মোদাসসের হোসেনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদ- দেন আদালত। তিনিও জরিমানা পরিশোধ করে মুক্তিপান।

এছাড়া বিভিন্ন পণ্যের মোড়কের গায়ে বিক্রয় মূল্য না থাকা সত্ত্বেও বিক্রির জন্য সংরক্ষণের দায়ে আরডিএ মার্কেটের কসমেটিক্স কর্নারকে ৩০ হাজার টাকা এবং মুল্য তালিকা না টাঙানোয় সাহেববাজারের আমজাদ স্টোরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে এ প্রতিষ্ঠান দুটির মালিককেও ১৫দিন ও সাত দিনের করে বিনাশ্রম কারাদ- দেন আদালত।

অভিযান চালানো হয় সাহেববাজার মাছ ও সবজি বাজারে। এসময় বিক্রেতাদের মুল্যতালিকা টাঙানো ও ওজনে কারচুপি নিয়ে সতর্ক করা হয়। এছাড়া ওই এলাকার বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট আইন সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করা হয়।

জনস্বার্থে এ ধরণের অভিযান অব্যহত থাকবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।






মন্তব্য চালু নেই