মেইন ম্যেনু

‘বাড়াবাড়ি করবেন না’! সেন্সর বোর্ডকে বলল বম্বে হাইকোর্ট

উড়তা-মামলার দ্বিতীয় দিনের শুনানিতে সেন্সর বোর্ডকে কার্যত ভর্ৎসনাই করেছে আদালত। বোর্ডের নির্দেশ মানলে ছবিটিতে মোট ৮৯ বার কাটছাঁট করতে হবে।

‘উড়তা পঞ্জাব’ নিয়ে সেন্সর বোর্ডকে বেশি ‘বাড়াবাড়ি’ করতে কার্যত নিষেধ করল বম্বে হাইকোর্ট। পহলাজ নিহালনির বোর্ড ওই ছবি থেকে ১৩টি বিষয় বাদ দিতে বললেও আদালত মাত্র একটি দৃশ্যই বাদ দিতে বলেছে। এ বিষয়ে আগামী সোমবার চূড়ান্ত রায় জানাবে বিচারপতি এস সি ধর্মাধিকারী এবং বিচারপতি শালিনী পানসালকার-জোশীর বেঞ্চ।

আজ, উড়তা-মামলার দ্বিতীয় দিনের শুনানিতে সেন্সর বোর্ডকে কার্যত ভর্ৎসনাই করেছে আদালত। বোর্ডের নির্দেশ মানলে ছবিটিতে মোট ৮৯ বার কাটছাঁট করতে হবে। বিচারপতিদের বক্তব্য, ‘‘সেন্সর বোর্ডের কাজ ছবিকে শংসাপত্র দেওয়া। ছবিতে কাটছাঁট করা নয়। এত কাটছাঁট করলে ছবির মূল বিষয়টিই নষ্ট হয়ে যাবে। ছবি থেকে পঞ্জাব শব্দটিও বাদ দেওয়া যাবে না।’’

সেন্সর বোর্ডের আইনজীবী এ শেঠনাকে বিচারপতিরা বলেন, ‘‘আমরা সকলেই চাই, সৃষ্টিশীল মানুষেরা বেঁচে থাকুন। তাই সেন্সর বোর্ডের কোনও ছবি নিয়ে এত সমালোচনা করা উচিত নয়।’’ এখানেই শেষ নয়। বিচারপতিদের সাফ কথা, ‘‘যদি ছবির মাধ্যমে মাদকের প্রচার করা হয়েছে বলে আপনারা মনে করেন, তা হলে ছবিটিকেই নিষিদ্ধ করুন। এত কাটছাঁট করার কী হয়েছে?’’

আদালতের মতে, বর্তমান দর্শক অনেক পরিণত। শুধুমাত্র অশ্নীল কথাবার্তা দিয়ে দর্শকদের আকৃষ্ট করা যায় না। বিচারপতিরা বলেন, ‘‘সেন্সর বোর্ড ছবিটিকে অযথা প্রচার দিচ্ছে কেন? যা বিতর্ক হচ্ছে, তাতে তো ছবির প্রচারের খরচ বেঁচে যাচ্ছে।’’

তবে ‘উড়তা পঞ্জাবে’র নির্মাতাদের একটি দৃশ্য বাদ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। বেঞ্চ জানিয়েছে, যে দৃশ্যে এক ব্যক্তি শরীরের একাংশ চুলকাচ্ছেন, তা বাদ দিতে হবে। এছাড়া, যে সব দৃশ্যে অশালীন শব্দ বলা হয়েছে, সেখানে সতর্কীকরণ দিতে হবে। ছবি-নির্মাতাদের তরফে আইনজীবী রবি কদম বলেন, ‘‘ওই দৃশ্য বাদ দিতে এবং সতর্কীকরণ দেখাতে আমরা রাজি।’’

আদালতের নির্দেশের পর আজ বিকেলেই সাংবাদিক বৈঠক করেন সেন্সর বোর্ডের প্রধান নিহালনি। তিনি বলেন, ‘‘আমি ব্যক্তিগতভাবে ছবিতে কাটছাঁটের নির্দেশ দিইনি। যা করা হয়েছে, তা নিয়ম মেনেই করা হয়েছে। বিষয়টি আদালতে গিয়েছে। কী হবে, তা আদালতকেই ঠিক করতে দিন।’’

এদিকে, ছবিকে ছাড়পত্র দেওয়ার বিধিতে পরিবর্তনের সুপারিশ করে একটি অন্তর্বর্তী রিপোর্ট জমা দিয়েছেন সেন্সর বোর্ড পুনর্গঠন কমিটির প্রধান শ্যাম বেনেগাল। তাতে একটি নতুন বিভাগ — ‘অ্যাডাল্ট উইথ কশন’ (এ/সি) চালু করার প্রস্তাব রয়েছে। শ্যাম বলেন, ‘‘এ/সি ছাড়া ইউ/এ বিভাগকেও দু’টি ভাগে ভাগ করা হবে। একটি ১২ বছরের ঊর্ধ্বে এবং আরেকটি ১৫ বছরের ঊর্ধ্বে।’’






মন্তব্য চালু নেই