মেইন ম্যেনু

বাধ্য হয়ে শরীর বিক্রি করছে স্কুল-বালিকারা!

ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সিয়েরা লিওনে। আর্থিক অবস্থা এতটাই খারাপ যে ছোট ছোট মেয়েরা পৃথিবীর আদিম পেশায় নেমে পড়েছে। স্কুলেরফি জোগানোর পয়সা নেই। বিকল্প না-পেয়ে মেয়েরা শরীর বিক্রি করছে। আমিনাতা নামের চোদ্দো বছরের একটি মেয়ে যে সত্যতা তুলেধরেছে, তাতে সিয়েরা লিওনের প্রকৃত ছবিটা ফুটে উঠেছে। আমিনাতা জানিয়েছে, স্কুলের টাকা দেওয়ার জন্য সে এক খদ্দেরের সঙ্গে রাতকাটিয়েছে।

সিয়েরা লিওনের স্কুলগুলোর বার্ষিক খরচ ৪০ পাউন্ডের মতো। এই টাকা দিয়ে স্কুলে লেখাপড়া চালানো খুবই কঠিন ব্যাপার। আমিনাতা জানাচ্ছে, চোদ্দো বছরের মেয়েদের সামনে দ্বিতীয় কোনও রাস্তা আর খোলা নেই। তাই ওরা বেছে নিয়েছে পৃথিবীর আদিম পেশাকে।

খদ্দেরের সঙ্গে রাত কাটিয়ে যে টাকা উপার্জন করেছে আমিনাতা, সেই টাকা দিয়ে স্কুলের খরচা চালাচ্ছে সে। শরীর বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে তারা। সেই মেয়েরাই আবার তাদের খদ্দেরদের স্কুলের টাকা মিটিয়ে দিতে বলছে।আমিনাতা আরও বলছে, এই খেলায় মেতে ওঠার ফলে মেয়েরা সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়েছে। তাদের দেখভালও কেউ করছে না।






মন্তব্য চালু নেই