মেইন ম্যেনু

বানরের শয়তানিতে একটি গ্রামের মেয়েদের বিয়ে বন্ধ!

বানরের শয়তানিতে বিপদে পড়েছেন রতনপুর গ্রামের বাসিন্দারা। পটনা থেকে প্রায় ৭৫ কিলোমিটার দূরের ভোজপুর জেলার এই গ্রামের মেয়েদের বিয়ে বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে! যখনই বরযাত্রী গ্রামে ঢোকে, কিছু দূর এগোতে না এগোতেই পড়িমরি করে নিজের প্রাণ বাঁচিয়ে পালায়।

বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রেই এই ঘটনা ঘটেছে। এখন তাই ওই গ্রামে ভয়ে কেউ আর বিয়ে করতে যেতেও রাজি হচ্ছে না। বিপদে পড়েছেন রতনপুরের মেয়েদের মা-বাবারাও। জানা যায়, যখনই বরযাত্রীরা প্রবেশ করে তখনই তাদের উপর দল বেঁধে বানরেরা হামলা করেন। তাণ্ডব।

শুনে আশ্চর্য লাগলেও, রতনপুরের বাসিন্দারা তাই-ই বলছেন। কয়েক দিন আগের ঘটনা। পাত্র তাঁর আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে রতনপুরে বিয়ে করতে আসছিলেন। ব্যান্ডের বাজনার তালে তখন সবাই নাচে মশগুল। গ্রামে রাস্তা ধরে কিছু দূর এগোতেই বানরের দলটি ঘিরে ধরে।

প্রথমে কেউ তোয়াক্কাই করেননি বিষয়টায়। লাঠি-ইট নিয়ে তাড়ানেোর চেষ্টা করে তাদের। কিন্তু বানররাও যে কম যায় না, সেটা হাড়ে হাড়ে টের পান তাঁরা কিছু ক্ষণের মধ্যেই। আরও বানর এসে এবার পাল্টা আক্রমণ করে বসে বরযাত্রীদের। তাঁদের উপর হামলা চালায়। অনেককেই কামড়ে, আঁচড়ে ফেলে দেয়।

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে বাকি লোকজনেরা পগারপার। এই হামলাকারীদের হাত থেকে বাঁচতে রাতের অন্ধকারে গা ঢাকা দেন তাঁরা। এই ধরনের ঘটনা একের পর এক ঘটতে থাকায়, চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন রতনপুরের বাসিন্দারাও। আর ইতিমধ্যেই এই হামলাকারীদের কাহিনি বহুদূর রটে যাওয়ায়, পাত্ররাও ওই গ্রামে বিয়ে করতে রাজি হচ্ছেন না। বিয়ে করতে গিয়ে শেষে বানরের খপ্পরে কে-ই বা পড়তে চায়!






মন্তব্য চালু নেই