মেইন ম্যেনু

বান্দরবানে গর্ভবতী মহিলাকে মারধরের প্রতিবাদে পিসিপি’র বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ

বান্দরবানের লামায় উপজাতি গর্ভবতী মহিলাকে মারধর করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে পিসিপি। ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় লামা বাজারস্থ কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ বিহার হতে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে লামা বাজারের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদর্ক্ষিণ শেষে প্রেস ক্লাবের সামনে এসে পথ সমাবেশ করে বিক্ষোভকারীরা। ২১ অক্টোবর বুধবার বেলা ১২ঘটিকায় লামা উপজেলার রুপসী পাড়া ইউনিয়নের টিয়ারঝিরি এলাকায় এঘটনা ঘটে।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করে লামা উপজেলা পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের (পিসিপি) সভাপতি সুইগ্যমং মার্মা। উপস্থিত থেকে আরো বক্তব্য রাখেন জেএসএস লামা উপজেলা শাখার সভাপতি অংগ্য মং মার্মা, সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার আসাম, সহ-সম্পাদক চংপাত ¤্রাে, পিসিপি’র লামা শাখার সাধারণ সম্পাদক উথোয়াইছা মার্মা ও জেএসএস নারী নেত্রী উষাংপ্রু মার্মা সহ প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, সরকার আমাদেরকে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি বানিয়ে অপমান করে চলেছে। আমরা আদিবাসী স্বীকৃতি চাই। আমরাও মানুষ! আমাদেরকে অবহেলা করবেন না। সরকারের দৃষ্টি ভঙ্গির দূর্বলতার সুযোগ নিয়ে এলাকার কতিপয় কিছু ভূমি দস্যুরা আমাদের উপজাতিদের জায়গা জমি জবর দখল করে নিয়ে যাচ্ছে। তার সূত্র ধরে লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের টিয়ারঝিরি এলাকায় গতকাল বুধবার ম্যামাচিং মার্মা(৩০) নামে এক উপজাতি গর্ভবতী মহিলাকে মারধর করে জখম করেছে মোঃ সেলিম ও সাইফুল ইসলাম সহ সহযোগীরা। বর্তমানে আহত ম্যামাচিং মার্মা লামা হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আমরা দুষ্কৃতিকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক বিচার দাবী করি।

পাশাপাশি বক্তরা আরো বলেন, বাংলাদেশে ৪৫টি জাতিসত্তার প্রায় ৩০ লাখ আদিবাসী রয়েছে। আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছে পাহাড়ী ও সমতল অঞ্চলের বিভিন্ন আদিবাসী সংগঠন। দাবি আদায়ের লক্ষ্যে একের পর এক কর্মসূচী পালন করে যাচ্ছে তারা। সংবিধান সংশোধনের লক্ষ্যে গঠিত বিশেষ কমিটির কাছে তারা নিজেদের দাবি-দাওয়া পেশ করেন। স্বীকৃতি পাওয়ার আশায় তারা বুক বেঁধে ছিলেন। কিন্তু আদিবাসীদের দাবি এখন পর্যন্ত এড়িয়ে চলেছে সরকার।






মন্তব্য চালু নেই