মেইন ম্যেনু

বাবার পরকীয়া, অপবাদ দিয়ে নারীকে না পেয়ে ছেলেকে মারধর

মায়ের বিরুদ্ধে পরকীয়ার অপবাদ দিয়ে বাসা থেকে ছেলেকে ধরে নিয়ে নারকেল গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধরের ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা রেলষ্টেশন ব্যাংক কলোনি এলাকায়।

খবর পেয়ে ছেলেটিকে উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করা হয়। বুধবার দুপুর ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আটক দুই যুবক হলেন জাহাঙ্গীর হোসেন ওরফে দালাল বাদশার দুই ছেলে শাকিব (২০) ও শাকিল (১৮)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে বাবার পরকীয়া প্রেমিকাকে খুঁজেঁ বের করে তার বাড়িতে হামলা চালায় জাহাঙ্গীর হোসেন ওরফে দালাল বাদশার দুই ছেলে শাকিব ও শাকিল।

এসময় বাবার কথিত প্রেমিকাকে ধরতে না পারলেও ওই নারীর ছেলে জুয়েলকে (২২) ধরে নিয়ে নিজ বাড়ির নারকেল গাছের সঙ্গে শিকল দিয়ে বেঁধে মারধর করতে থাকে। খবর পেয়ে শিকলে বাঁধা অবস্থায় জুয়েলকে উদ্ধার করে পুলিশ।

আটক শাকিব জানান, তার বাবা জাহাঙ্গীর (৪৮) প্রায় তিন বছর ধরে তাদের এলাকার কামালের বাড়ির ভাড়াটিয়া আয়ুব আলীর স্ত্রীর (৪২) সঙ্গে পরকীয়া প্রেম করে আসছেন।

এ নিয়ে তাদের পরিবারের অশান্তি দেখা দেয়। বুধবার দুপুরে তার বাবার মোবাইলে ফোন করেন আয়ুব আলীর স্ত্রী। এরপর তার খোঁজ-খবর নিয়ে তার বাড়িতে গিয়ে পরকীয়া করতে নিষেধ করলে তার ছেলে জুয়েল ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এরপর তাকে ধরে বাড়িতে আনা হয়।

নির্যাতনের শিকার জুয়েল জানান, তার মা ফতুল্লা রেলষ্টেশনে সবজি বিক্রি করেন। সেখানে শাকিবের বাবার সঙ্গে আমার মায়ের দেখা-সাক্ষাৎ হয়। তার বাবা ফোন করে আমার মাকে প্রায় সময় উত্ত্যক্ত করতেন।

এ নিয়ে আমি প্রতিবাদ করলে তার বাবা উল্টো আমাকে হত্যার হুমকি দিতের। বুধবার দুপুরে শাকিব তার ভাই শাকিলকে নিয়ে আমাদের বাসায় এসে ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে আমাকে ধরে তাদের বাড়িতে নিয়ে নারকেল গাছে শিকল দিয়ে বেঁধে মারধর করে।

ফতুল্লা মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নাজনীন জানান, শিকলে বাঁধা অবস্থায় জুয়েলকে উদ্ধার করা হয়। এসময় ২ জনকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।






মন্তব্য চালু নেই