মেইন ম্যেনু

বাবা-মায়ের দাবি সাদা, নিজে কালো

সাদা হয়েও কালোদের ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার অভিযোগ ওঠার পর পদত্যাগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক অধিকার আন্দোলনের এক নেত্রী।

আফ্রিকান-আমেরিকানদের অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করেন তিনি। অবশ্য তার বাবা-মা দাবি করেছেন, তিনি আমেরিকান বংশোদ্ভূত শ্বেতাঙ্গ। কিন্তু কৃষ্ণাঙ্গ হিসেবে পরিচয় তৈরি করে প্রকৃত পরিচয় গোপন করেছে।

র‌্যাচেল ডোলেজি (৩৭)। মানবাধিকার সংগঠন ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্যা অ্যাডভান্সমেন্ট অব কালারড পিপল (এনএএসিপি)-এর স্পোকান চ্যাপ্টারের প্রেসিডেন্ট তিনি। এনএএসিপি যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে প্রাচীন ও বড় নাগরিক অধিকারবিষয়ক সংগঠন।

র‌্যাচেল ডোলেজি বলেছেন, আমি পদত্যাগ করেছি, যাতে সামাজিক ও রাজনৈতিক ইস্যুগুলো আড়ালে চলে না যায়।

গত সপ্তাহে এক দম্পতি ডোলেজিকে মেয়ে বলে দাবি করার পর পরিস্থিতি ঘোলাটে হতে থাকে। ওই দম্পতির দাবি, তাদের মেয় ডোলেজি তার পরিচয় লুকিয়েছে এবং সেভাবেই বেড়ে উঠেছে।

ওই দম্পতি গণমাধ্যমকে ডোলেজির ছোটবেলার ছবি দেখিয়ে বলেন, তাদের মেয়ে প্রকৃতপক্ষে একজন আমেরিকান। ছোটবেলায় তার লম্বা ও সোজা চুল ছিল। কিন্তু কৃত্রিমভাবে সে তার চুল কৃষ্ণাঙ্গদের মতো কোঁকড়া করেছে।

তবে ডোলেজিকে গণমাধ্যম যখন তার পরিচয় নিয়ে প্রশ্ন করেছে, তখন তিনি তা এড়িয়ে গেছেন। এতে করে বিষয়টি আরো ঘোলাটে হয়ে উঠেছে।

তথ্যসূত্র : আলজাজিরা অনলাইন।






মন্তব্য চালু নেই