মেইন ম্যেনু

বার্সেলোনার টানা তৃতীয় হার

২০ মার্চ। ভিয়ারিয়ালের মাঠে লা লিগায় ২-২ গোলে ড্র করে বার্সেলোনা। ২ এপ্রিল এল ক্লাসিকোতে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হার মানে ২-১ গোলে।

৯ এপ্রিল রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে হারে ১-০ গোলে। ১৩ এপ্রিল উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাছে দুই লেগ মিলিয়ে কাতালানরা হার মানে ৩-২ গোলে।

আর সবশেষ ১৭ এপ্রিল রাতে লা লিগার ম্যাচে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে হার মানে ভ্যালেন্সিয়ার কাছে। বার্সেলোনার ১৩ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম টানা তিন ম্যাচ হারল লুইস এনরিকের শিষ্যরা।

এই হারের ফলে লা লিগার শিরোপা জয়ের সম্ভাবনায়ও চিড় ধরেছে কাতালান ক্লাবটির।

এ হারের ফলে ৩৩ ম্যাচ থেকে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষেই রয়েছে বার্সা। সমসংখ্যক পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। আর ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে অ্যাটলেটিকো ও বার্সার ঘাড়ে তপ্ত নিঃশ্বাস ছাড়ছে রিয়াল মাদ্রিদ।

রোববার দিবাগত রাতে ন্যু ক্যাম্পে ম্যাচের ২৬ মিনিটে আত্মঘাতি গোলে পিছিয়ে পড়ে বার্সেলোনা। ভ্যালেন্সিয়ার খেলোয়াড়দের ডানপ্রান্ত থেকে করা সমন্বিত আক্রমণ রুখতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন ইভান রাকেটিক। তার পা ছুঁয়ে বল জালে আশ্রয় নিলে ঘরের মাঠে পিছিয়ে পড়ে স্বাগতিকরা। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে ভ্যালেন্সিয়ার মিনা বার্সার গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে নিশানা ভেদ করেন। ফলে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিশ্রামে যায় সফরকারীরা।

বিরতির পর ম্যাচের ৬৬ মিনিটে লিওনেল মেসি একটি গোল শোধ দেন। তাকে গোলে সহায়তা করেন জর্ডি আলবা। এই গোলের মাধ্যমে লিওনেল মেসি তার ক্যারিয়ারের ৫০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন। অবশ্য তার মাইলফলক ছোঁয়ার দিনে জয় বঞ্চিত হয়েছে লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।






মন্তব্য চালু নেই