মেইন ম্যেনু

বালিকা বধূর ওপর নেক্কার জনক ভাবে নির্যাতন

খুলনার পাইকগাছা উপজেলার পল্লিতে যৌতুক না পেয়ে শনিবার মধ্যরাতে এক গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তার স্বামীকে গণপিটুনি দিয়ে এলাকাবাসী পুলিশে সোপর্দ করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হরিঢালী গ্রামের ইনছার সরদারের ছেলে ময়নুদ্দীনের (৩৫) সঙ্গে ডুমুরিয়া উপজেলার জামিলা গ্রামের ছহিলউদ্দীনের মেয়ে মাহাফুজা খাতুনের (১৩) এক মাস আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী ময়নুদ্দীন যৌতুকের জন্য প্রায়ই শারীরিক নির্যাতন করত বলে মাহাফুজা জানিয়েছে।

সর্বশেষ শনিবার রাতে ভাত দিতে দেরি হওয়ার অজুহাতে রাত ১২টার দিকে তাকে হাত-পা ও মুখ বেঁধে পাশের বাগানে নিয়ে যায়। এ সময় তার পরনের কাপড় খুলে এবং গামছা দিয়ে একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে তার যৌনাঙ্গে কলা গাছের থোঁড় ঢুকিয়ে নির্যাতন করে। এরপর ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করার সময় হঠাৎ মুখের বাঁধন খুলে গেলে মাহাফুজার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে এবং ময়নুদ্দীনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে মাহাফুজাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আটক ময়নুদ্দীন পুলিশের কাছে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে।

পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আশরাফ হোসেন জানিয়েছেন, ইতিপূর্বে যৌতুকের জন্য ময়নুদ্দীন আরো দুই স্ত্রীকে তাড়িয়ে দিয়েছে বলে জানা গেছে। তিনি জানান, ময়নুদ্দীনের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই