মেইন ম্যেনু

বালিশচাপায় নববধূ শেষ

নারায়ণগঞ্জ : নববধূকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করার দাবি করেছেন নিহতের পরিবার। ঘটনার পর থেকেই স্বামী-শ্বশুরসহ শশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার ভোরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে। যৌতুক না পেয়ে লাকি আক্তার (১৮) নামে এক নববধূকে হত্যা করা হয়েছে।

উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার রানীপুরা (ইসলামপুর) এলাকায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা। নিহত লাকি আক্তার উপজেলার তাড়াইল এলাকার ইব্রাহীম মিয়ার মেয়ে।

রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) খায়রুল ইসলাম জানান, সকালে শ্বশুরবাড়ি রানীপুরা (ইসলামপুর) এলাকায় নববধূ লাকি আক্তারের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। পরে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত নববধূর মৃতদেহ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তাকে শ্বাসরোধ হত্যা করা হয়েছে বলে ধারনা পুলিশের।

নিহত লাকি আক্তারের পিতা ইব্রাহীম মিয়া জানান, দেড় মাস আগে রানীপুরা (ইসলামপুর) এলাকার আলম মিয়ার ছেলে নাঈম মিয়ার সঙ্গে লাকি আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই জামাই নাঈম মিয়া ও মেয়ের শ্বশুর আলম মিয়া যৌতুক হিসেবে একটি অটোরিকশা দাবি করে আসছিল।

তিনি বলেন, ইব্রাহীম গরিব বলে দাবিকৃত অটোরিকশা দিতে পারছিলেন না। তারপরও মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজনের কাছে অটোরিকশা কিনে দেয়ার জন্য সময় চেয়েছিলেন।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, নিহত নববধূ লাকি আক্তারের পিতা ইব্রাহীম মিয়া বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।






মন্তব্য চালু নেই