মেইন ম্যেনু

বাড়ী বাড়ী গিয়ে খাজনা আদায়

বালিয়াকান্দির বহরপুর বাজারের ইজারাদারদের দৌরাত্বে ব্যবসায়ীরা অতিষ্ট

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুর বাজারের ইজারাদারদের দৌড়াত্বে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। গ্রামাঞ্চলে বাড়ী বাড়ী গিয়ে খাজনা আদায় করছে। কেউ দিতে অস্বীকার করলে তাকে হামলার শিকার হতে হচ্ছে।

বহরপুর ইউনিয়নের বাঘুটিয়া গ্রামের জালাল মিয়ার ছেলে ধানের চাতাল ব্যবসায়ী আঃ সালাম মিয়া জানান, তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন হাট-বাজার ও গ্রামাঞ্চল থেকে ধান ক্রয় করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। গত ২২ জুন বহরপুর ইউনিয়নের পুরানচর গ্রামের জমির হোসেনের বাড়ী সহ বিভিন্ন বাড়ী থেকে ৩০মন ধান সাড়ে ৬শত টাকা মন মুল্যে ক্রয় করেন।

ধান নিয়ে রওনা দেওয়ার সময় বহরপুর বাজারের ইজারাদার আবুল কালাম আজাদের প্রতিনিধি মহা ও তার ছেলে শাকিল উপস্থিত হয়ে বলে বহরপুর এলাকার যেখান থেকেই মাল ক্রয় করো এতে খাজনা দিতে হবে। প্রায় ২বছর ধরে ধান ক্রয় করে আসছো এতে খাজনা বাবদ ৮ হাজার টাকা দাবী করে। তাদের দাবীকৃত টাকা না দেওয়ায় আঃ সালাম মিয়া ও তার ছেলে শাহীন মিয়াকে মারপিট করে কাছে থাকা ১৫শত টাকা জোড়পুর্বক ছিনিয়ে নেয়। বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে মৌখিক ভাবে অভিযোগ করা হয়েছে।

জানাগেছে, বহরপুর বাজারের ইজারাদাররা বালিয়াকান্দি-রাজবাড়ী সড়কে চলাচলরত গরু ব্যবসায়ী, বিভিন্ন মালামালের খাজনা না দিতে চলাচল করতে পারে না। বহরপুর এলাকার গ্রামাঞ্চলে কেউ বাড়ী থেকে কোন প্রকার মালামাল বিক্রি করতে গেলে ওই ব্যবসায়ী ও গৃহস্তের খাজনা প্রদান করতে হয়। খাজনা প্রদান না করলে ইজারাদারদের হাতে লাঞ্ছিত ও মারপিটের শিকার হতে হচ্ছে।

বিষয়টি দ্রুত খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী ও গৃহস্তরা।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল হাসান জানান, ইজারাদাররা বাজারের বাইরে গিয়ে খাজনা আদায় করতে পারবে না। যদি কেউ আদায় করে থাকে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই