মেইন ম্যেনু

বায়োমেট্রিক পদ্ধতি: ‘অপপ্রচারকারীদের সনাক্ত করা হবে’

বায়োমেট্রিক পদ্ধতি নিয়ে অপপ্রচারকারীদের সনাক্ত করে তাদের ধরা হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তিনি বলেন, মোবাইল সিম নিবন্ধন ও পুনঃ নিবন্ধনে কোন পর্যায়ে আঙুলের ছাপ সংরক্ষণ করা হচ্ছে না । যারা এ বিষয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদের ধরা হবে।

রোববার সচিবালয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন নিয়ে এক সভায় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অভিযোগ ওঠে অপারেটরদের সিম নিবন্ধনে আঙ্গুলের ছাপ সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এ তথ্য বিদেশে পাচার হতে পারে বলে অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করেন। গ্রাহকের ভাষ্য, এ তথ্য পাচার হলে তা দেশে বিদেশে অপরাধীরারা ব্যবহার করতে পারে।

নাগরিকদের আঙুলের ছাপের মাধ্যমে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন বন্ধ করতে উকিল নোটিশের বিষয়ে তারানা হালিম বলেন, যে পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন করা হচ্ছে সেখানে অপারেটরদের আঙুলের ছাপ সংরক্ষণ করার প্রযুক্তিগত কোন সক্ষমতা নেই।

তিনি বলেন, এই প্রজেক্ট (বায়োমেট্রিক নিবন্ধন) ভেস্তে গেলে অপারেটররা সবচেয়ে খুশি হবে। তাদের সিম বিক্রি কমে গেছে।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দীন জানান, যে যন্ত্রের সাহায্যে আঙুলের ছাপ নিয়ে সিম নিবন্ধন করা হচ্ছে সেখানে শুধু অনলাইনে যাচাই করা হচ্ছে, ওই যন্ত্রে আঙুলের ছাপ সংরক্ষণ করার প্রযুক্তি নেই। ব্যাংক ও অন্যান্য সেবা খাতেও এইভাবে ছাপ যাচাই করা হচ্ছে।

টেলিযোগাযোগ সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী বলেন, এই অপপ্রচারে যারা জড়িত রয়েছে, তাদের চিহ্নিত করতে হবে। গোড়ায় হাত দেওয়া হবে। তাদের খুঁজে বের করা হবে। এদের ধরতে চাই।






মন্তব্য চালু নেই