মেইন ম্যেনু

বিএনপিকে অনুতাপ দিবস পালন করতে হবে

৫ জানুয়ারি বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করার ঘোষণা দিলেও সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মনে করছেন ওই দিনটি বিএনপির অনুতাপ দিবস হিসেবে পালন করা উচিৎ। মন্ত্রীর ভাষ্য, বিএনপির আন্দোলন আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ নয়, তাদের আন্দোলন চোরাবালিতে আটকে গেছে। তারা গণতন্ত্র উদ্ধারের নামে গণতন্ত্রকে পুড়িয়ে মারার ষড়যন্ত্র করছে।

সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ছাত্রলীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গৌরবে, সৌরভে, উন্নয়নে, অর্জনে, সাফল্যে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে বিস্ময়। বিশ্বব্যাংক আমাদের চোরের জাতি বানাতে চেয়েছিল। আমরা প্রমাণ করেছি চোরের জাতি নয়, আমরা বীরের জাতি। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, ঢাকা-চট্টগ্রাম রোড চার লেন ও শিক্ষার্থীদের হাতে ৩৪ কোটি নতুন বই প্রদানের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর বীরকন্যা প্রমাণ করেছেন- ইয়েস, উই ক্যান।’

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেনের সঞ্চালনায় ও সংগঠনের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে এতে আরো উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডা. দীপু মনি, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেনসহ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পরীক্ষা কমপ্লিট নয়, মানসম্মত শিক্ষা অর্জন আজকে তোমাদের লক্ষ্য হতে হবে। সরকারের সামনে চ্যালেঞ্জ সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদ মোকাবিলায় বাংলাদেশের ছাত্র সমাজকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা রাখতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ সব সূচকে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাচ্ছে। পাকিস্তান শুধু এগিয়ে আছে পরমাণু বোমায়। এই ধ্বংসের বোমা আমরা চাই না।’

জাতীয় সঙ্গীত ও দলীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়।

অনুষ্ঠান শেষে একটি বার্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে শুরু হয়ে শাহবাগ, মৎস্য ভবন, কাকরাইল হয়ে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে গিয়ে শেষ হয়।






মন্তব্য চালু নেই