মেইন ম্যেনু

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে ‘রাতের ভেল্কি’

সম্প্রতি বিএনপির ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটির আকার পরিবর্তন করা হয়েছে। নতুন করে নির্বাহী কমিটির সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হলেও দলটির দায়িত্বশীল কোনো মহল এ বিষয়ে কিছু জানেন না। দলের একটি মহল রাতের অন্ধকারে এ ধরনের অপকর্ম করেছেন বলে দাবি বিএনপির নেতাকর্মীদের।

বিএনপির একটি সূত্র জানায়, ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের প্রায় সাড়ে চার মাস শেষে ৫১৯ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করে দলটি। এর মধ্যে ১৭ জন স্থায়ী কমিটির সদস্য বাদ দিয়ে নির্বাহী কমিটির সদস্য ৫০২ হলেও বৃহস্পতিবার তা বেড়ে ৫০৩ জন হয়েছে। নতুন সংযোজিত এ সদস্য হলেন কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোবাশ্বের আলম ভূইয়া। ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী কমিটির সদস্য (নতুন) অংশে তার ক্রম নম্বর ৫৫। অথচ সংবাদ মাধ্যমে সরবরাহ করা কমিটির তালিকায় তার কোনো নাম ছিল না।

এ বিষয়ে মোবাশ্বের আলম টেলিফোনে বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সিরাজুল ইসলামকে উপদেষ্টা পরিষদে নিয়ে যাওয়ার কারণে শূন্যপদে আমাকে নেওয়া হয়েছে। যে দিন কমিটি ঘোষণা করা হয় তারপর দিন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের স্টাফ আকতার আমাকে খবরটি নিশ্চিত করেন বলেও দাবি করেন মোবাশ্বের।

দলের সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু বলেন, যশোর এলাকার নির্বাহী কমিটির সদস্য কাজী নুরুল হুদা কমিটি থেকে চলে যাওয়ার কারণে তার শূন্যস্থানে মোবাশ্বেরকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

তবে অ্যাডভোকেট কাজী নুরুল হুদা জানান, তিনি কমিটি থেকে কখনোই ইস্তফা দেন নাই। তিনি কেন্দ্রীয় কমিটিতে আগেও ছিলেন, এবারের ঘোষিত কমিটিতেও তার নাম রয়েছে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমাদের ঘোষিত কমিটিতে মোবাশ্বের আলম ভূইয়া নামের কোনো সদস্য নাই। যারা এ ধরনের কথা বলছেন তারা ভুল বলছেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, কেউ নিজে থেকে নিজেকে কমিটির সদস্য দাবি করলেইতো হল না।

এদিকে বিএনপি সূত্র জানায়, গুলশান কার্যালয়ের এক প্রভাবশালী কর্মকর্তার ইচ্ছায় সবার অগোচরে এরকমভাবে কমিটির সদস্য রদবদল হচ্ছে। তার সাথে মোবাশ্বের আলম ভূইয়ার ভালো সম্পর্ক থাকার কারণেই তিনি রাতের অন্ধকারে কমিটিতে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করেছেন বলেও সূত্রটি জানায়।-পরিবর্তন






মন্তব্য চালু নেই