মেইন ম্যেনু

‘বিএনপির ৫০ লাখ নেতাকর্মী মিথ্যা মামলার শিকার’ [ভিডিওসহ]

সারা দেশে বিএনপির ৫০ লাখ নেতাকর্মীকে ‘মিথ্যা মামলার’ শিকার হয়ে দিনের পর দিন আদালতে হাজিরা দিতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার মাহবুব হোসেন।

সরকার নেতাকর্মীদের এসব মামলা প্রত্যাহার করবে না জানিয়ে এ থেকে উত্তরণে আন্দোলনই একমাত্র পথ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘জাতীয়তাবাদী প্রত্যাগত প্রবাসী দল’ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মাহবুব এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়ার মামলা প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি বলেন, ‘একজন আইনজীবী হিসেবে আমি বিএনপি চেয়ারপারসনের মামলা প্রত্যাহার চাই না, বিচারের সম্মুখীন হতে চাই। তবে একটা কথা- খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে তারা ভুল করেছে। কেননা, মামলা দিয়ে তাকে নাস্তানুবাদ করা যাবে না।’

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীনরা হস্তক্ষেপ করলে তার পরিণতি শুভ হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, এই নির্বাচনে যদি আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসীরা বা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বা পুলিশ বাহিনী হস্তক্ষেপ করে, তাহলে তৃণমূলে বিরাট আন্দোলন শুরু হয়ে যাবে।

খন্দকার মাহবুব আরও বলেন, দলীয় প্রতীকে ইউপি নির্বাচন সরকারের ষড়যন্ত্রমূলক সিদ্ধান্ত। স্থানীয় সরকারের এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকার বিশ্ববাসীকে ধোকা দিতে চায়।

‘তারা (সরকার) বিশ্ববাসীকে দেখাতে চায়- নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন হচ্ছে। নির্বাচনের ফলাফলে নৌকার জয়জয়কার হয়েছে। অন্যদিকে, ধানের শীষের ভরাডুবি ঘটেছে অর্থাৎ দেশবাসীর কাছে বিএনপির কোনো জনপ্রিয়তা নেই’ যোগ করেন তিনি।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এ নেতা বলেন, সরকার মনে করেছে, বিশ্ববাসী নির্বাচনের কারচুপির খবর জানতে পারবে না। কিন্তু দেশবাসী ও বিশ্ববাসীকে ধোকা দেয়া সম্ভব নয়।

সংগঠনের সভাপতি এসএম সোহরাব হোসেনের সভাপতিত্বে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আহমেদ আজম খান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, সহ-স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।






মন্তব্য চালু নেই