মেইন ম্যেনু

‘বিএনপি-জামায়াতকে বাংলাদেশ থেকে মুছে ফেলা হবে’

বিএনপি-জামায়াতকে বাংলাদেশ থেকে মুছে ফেলা হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

রাজধানীর গুলিস্তানে অবস্থিত মহানগর নাট্যমঞ্চে মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের অষ্টম জাতীয় কংগ্রেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

নাসিম বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত ওদের বাংলাদেশ থেকে মুছে ফেলবো, মুছে ফেলবো ইনশাআল্লাহ্ মুছে ফেলবো। মনে রাখবেন ওরা হলো একাত্তরের ঘাতকের দোসর।’

‘জামায়াত বিএনপির কোলে উঠে জায়গা দখল করতে চায়। না হলে খালেদা জিয়া কীভাবে বলে জামায়াতকে নিয়ে বঙ্গভবনে যাবো। কথা পরিষ্কার, সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি যে সিদ্ধান্ত নিবে নির্বাচন কমিশন নিয়ে, আমরা ১৪ দল একসঙ্গে মেনে নিবো এবং তার অধীনে নির্বাচন হবে’ বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

সাম্যবাদী দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে নাসিম বলেন, ‘মনে রাখবেন খালেদা জিয়ার দল মাইর খেয়ে ঘাপটি মেরে আছে। আবার জেগে উঠতে পারে। ওদের কিন্তু এখনো সাপের বিষ শেষ হয়নি। ওই একটা দেশ আছে, একাত্তরের পরাজিত দেশ ওরা উস্কানি দিবে মনে রাখবেন।’

‘সাবধান থাকতে হবে, আগামীদিন সাবধান থাকতে হবে। লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। ওই নির্বাচনে চূড়ান্ত বিজয়ের মধ্য দিয়ে ইনশাআল্লাহ্ ওদেরকে বাংলাদেশের মাটি থেকে রাজনৈতিকভাবে আমরা সরিয়ে দিবো’ বলেন জাতীয় নেতা এম মনসুর আলীর ছেলে নাসিম।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘২০১৯ সালে নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচন হবে শেখ হাসিনার অধীনে। দুনিয়ার কোথাও গণতান্ত্রিক দেশে নির্বাচিত সরকারের অধীনে ছাড়া নির্বাচন হয় না। আমেরিকা বলেন, ইউরোপ বলেন, ভারতের কথাই বলেন নির্বাচিত সরকারের অধীনেই নির্বাচন হয়।’

‘আমরা তত্ত্বাবধায়ক সরকার করেছিলাম। খালেদা জিয়াই তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে বিতর্কিত করেছিল। একজন রাষ্ট্রপতিকে অসাংবিধানিকভাবে গায়ের জোরে তত্ত্বাবধায়ক সরকারপ্রধান বানিয়ে খালেদা জিয়া এই তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে বিতর্কিত করেছিল’ বলেন নাসিম।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের নির্বাচনে ধানের শীষ আর নৌকার লড়াই হলো। ওরা বললো ধানের শীষ নাকি এবার নৌকাকে ডুবিয়ে দিবে। তা আল্লাহ্‌র মাইর, দুনিয়ার বাইর। কে ডুবলো দেখছেন তো? এমন ডুবা ডুবছে ওঠানোর শক্তি নাই ধানের শীষের। তারপর বলে নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে।

‘সাংবাদিক বন্ধুরা আছেন, কোথাও কেউ বলে নাই কারচুপি হয়েছে। প্রকাশ্য দিবালোকে ৬৫ শতাংশ মানুষ ভোট দিলো। এমনকি ৮০ বছরের বৃদ্ধা অন্যের কাঁধে ভর করে গিয়ে ভোট দিয়েছে আইভীকে। সে (৮০ বছরের বৃদ্ধা) বলে আইভীকে আমি ভোট দিবো, মরে যাওয়ার আগে আইভীকে ভোট দিতে চাই।’

‘আর ওরা (বিএনপি) বলে এই নির্বাচন নাকি বিতর্কিত। ওদের অভ্যাসই হলো বিতর্কিত করা। মুক্তিযুদ্ধকে বিতর্কিত করেছে খালেদা জিয়ার দল। বাংলাদেশের সমগ্র অর্জনকে বিতর্কিত করাই হলো খালেদা জিয়ার চিরদিনের অভ্যাস’ বলেন নাসিম।

জঙ্গি বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দানবীয় শক্তির উত্থান হয়েছিল, ‘জঙ্গি’। আমার ছেলে-মেয়েদের হত্যা করা হয়েছে গুলশানে। ঈদের জামায়াতে পর্যন্ত হামলা করা হয়েছে। পুলিশ জীবন দিয়ে মানুষকে রক্ষা করেছে।

‘ইউরোপ পারেনি, আমেরিকা পারেনি, ভারত পারেনি, দুনিয়ার কেউ পারেনি। শেখ হাসিনা মাত্র ৩ মাসের মধ্যে ওই জঙ্গি দমন করেছে। জঙ্গি উত্থান বন্ধ করে দিয়েছে’ বলেন নাসিম।

মা-বাবা জঙ্গি সন্তানের লাশ নিতে চায় না উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই জঙ্গি উত্থান কেন হয়? জঙ্গিরা কারা? এদের সেই সাম্রাজ্যবাদের উস্কানিতে জন্ম হয়েছে। ধর্মের নামে এই জঙ্গি উত্থান করা হয়। মা-বাবা পর্যন্ত জঙ্গি সন্তানের লাশ নেয় না। সে বলে ও আমরা সন্তান না। ও আমরা সন্তান হতে পারে না।

বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের (এমএল) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে কংগ্রেসে আরও বক্তব্য রাখেন কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত আন সিয়ং ডু, বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের ডেপুটি চিফ (মিশন) ইয়াং শিচাও, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞানের সাবেক অধ্যাপক অজয় রায়, জাসদের একাংশের নেতা শিরিন আক্তার প্রমুখ।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই