মেইন ম্যেনু

বিচারককে ৩ কোটি টাকা ঘুষ দিয়েছিল তারেক!

বিচারিক আদালতের বিচারক মো. মোতাহার হোসেনকে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান ৩ কোটি টাকা ঘুষ দিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

শুক্রবার রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিরে ঢাকা মহানগর পূজা কমিটির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

শেখ সেলিম বলেন, ওই যে খালেদা জিয়ার একটা পোলা আছে না, তারেক রহমান। চোর, চুরি করে টাকা পাচার কইরা বাইরে নিছে। বিচারের সময় কী করছে জানেন? মোতাহার নামের এক বিচারককে ৩ কোটি টাকা ঘুষ দিয়ে কোনো মতে তারে বাঁচাবার জন্য বলছে। বলছে আমারে বাঁচায়া দাও কোনোভাবে। ঘুষ দিছে। ওই ব্যাটা করছে কি; যেদিন রায় দিছে ওইদিন রাতেই পালাইয়া গেছে। কারণ, তিনি জানেন নিম্ন আদালত যে রায় দিছে তা ঠিকমত দেন নাই।”

sheikh-selim20160722155834

তিনি বলেন, “বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য ভারতের ১৮ হাজার সৈন্য রক্ত দিয়েছে। এই রক্তের বন্ধন কেউ কখনো ছিন্ন করতে পারবে না। এটা চিরস্থায়ী বন্ধন।”

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের আদর্শের মিল আছে। তারও ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র, আমরাও ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র।

সেলিম বলেন, বাংলাদেশের যদি কেউ ক্ষতি করে থাকে তাহলে সবচেয়ে করেছে জিয়াউর রহমান। সে ছিল পাকিস্তানের এজেন্ট। মুক্তিযুদ্ধে তিন শ্রেণির লোক অংশগ্রহণ করেছিল। একশ্রেণি হলো-যারা বঙ্গবন্ধুর ডাকে কোনোদিক না তাকিয়ে যুদ্ধে গেছে অন্ধভাবে। আরেকটি শ্রেণি-পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী আক্রমণ করতে পারে, সেই আক্রমণ থেকে বাঁচতে ভারতে গিয়ে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে। অন্য শ্রেণিটি পাকিস্তানি এজেন্ট হিসেবে। ওইখানে গিয়ে মুক্তিযুদ্ধের কৌশলটা কী, সেটা পাকিস্তানি প্রভুদের জানানোর জন্য গিয়েছিলেন। এর প্রমাণ হলো জিয়াউর রহমান।

সন্ত্রাসবিরোধী জাতীয় ঐক্য ইতোমধ্যে হয়ে গেছে দাবি করে শেখ সেলিম বলেন, যারা ২০০ ওপরে মানুষ পুড়ায় মারছে, তাদের সঙ্গে কিসের ঐক্য? জনগণের মধ্যে ইতোমধ্যে ঐক্য হয়ে গেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নির্মূল করব।”

ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জে. এল. ভৌমিকের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ভারতীয় ডেপুটি হাই কমিশনার আদর্শ সাইকা, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ডি এন. চ্যাটার্জী উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার সকালে মুদ্রাপাচার মামলায় নিম্ন আদালতের খালাসের রায় বাতিল করে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও ২০ কোটি টাকার অর্থদণ্ড দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সেই সঙ্গে তারেক রহমানের বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের সাত বছরের কারাদণ্ডও বহাল রাখা হয়েছে। তবে তাকে বিচারিক আদালতের দেয়া ৪০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড কমিয়ে ২০ কোটি টাকা করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই