মেইন ম্যেনু

বিজ্ঞানীরা ভুলবশত তৈরি করলো নতুন ‘কাঁচ’

যদি প্রশ্ন করা হয় এমন একটা পদার্থের নাম বলুন যেটাকে তরল, গ্যাসীয় কিংবা বায়বীয় কোনটাই বলা যায়না সেইটা কোনটা? আমি নিশ্চিত অনেকেই তার নাম বলতে পারবেনা! এর উত্তর খুব সাধারণ আর তা হলো-কাঁচ ! কারণ কাঁচের ভিতর অনুগুলো কোনো সুনির্দিষ্ট নিয়মে থাকেনা, অগোছালো অবস্থায় থাকে।

কাঁচের প্রধান উপাদান হচ্ছে বালি বা সিলিকা। আজকের দিনে আমাদের যে কাঁচ তৈরি পদ্ধতি রয়েছে, তাতে যে মূল তিনটি উপাদান প্রয়োজন হয় সেগুলি হল সিলিকা, সোডা, এবং চুন। যখন এগুলির মিশ্রণকে ১২০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে উত্তপ্ত করা হয়, তখন এগুলি গলতে শুরু করে এবং তৎক্ষণাৎ যদি ঠাণ্ডা করা যায় তাহলে কাঁচের জন্ম হয়।

আমি আপানাদের আজ নতুন ধরনের একটা কাঁচের কথা বলব যা আণবিক প্যাটার্ন দিয়ে তৈরী। সম্প্রতি কিছু অদ্ভুত দুর্ঘটনায়, বিজ্ঞানীরা একটি নিয়মিত আণবিক প্যাটার্ন এর সঙ্গে একটি নতুন ধরণের কাঁচ তৈরি করেছেন।

একদল বিজ্ঞানীর একটি গোপন পরীক্ষা থেকে এই গ্লাস আবিষ্কার হয়। তারা আণবিক প্যাটার্ন এর সাথে একটি নতুন পরীক্ষা চালাচ্ছিলেন। আর এ সময়েই অবিশ্বাস্যভাবে এই কাঁচ তৈরি হয়।

বিজ্ঞানী দলের প্রধান ‘ডি পাবলো’ বলেন, অবিশ্বাস্যভাবে তৈরি হওয়া এই নতুন কাঁচ যেমন ফাইবার ও সৌর কোষ এর সমন্বয় সাধন করবে তেমনি LED হিসাবে ইলেকট্রনিক ডিভাইসের দক্ষতাও উন্নত করতে পারবে। এটি মূলত চশমার কাঁচ তৈরিতে ব্যবহার করা হবে। ফলে চশমা আরও বেশি নির্ভরযোগ্য হয়ে উঠবে।

সূত্র: মেট্রো।






মন্তব্য চালু নেই