মেইন ম্যেনু

বিজ্ঞাপনের জন্য ৩ কোটি দাবি শাহরুখের

পুজার আগেই পর্যটনের বিজ্ঞাপন নতুন রূপে সম্প্রচার করতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যের পর্যটন দপ্তর।

আর এই বিজ্ঞাপনে তিনি কাজ করবেন বলেও সবুজ সঙ্কেত দিয়েছেন বাংলার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর শাহরুখ খান। এ কথা জানিয়েছেন রাজ্যের প্রধানসচিব (পর্যটন) অজিতরঞ্জন বর্ধন।

তিনি বলেন, ‘পুজোর আগেই আমরা সম্পূর্ণ নতুন বিজ্ঞাপন সম্প্রচার করব, তাতে শাহ রুখ খান থাকতে রাজি হয়েছেন। উনি এই বিজ্ঞাপনের জন্য ৩ কোটি টাকা চেয়েছেন। তবে আমরা ২ কোটি টাকায় রাজি করানোর চেষ্টা করছি।’ এই বিজ্ঞাপনের দায়িত্ব পেয়েছে অগিলভি অ্যান্ড ম্যাথার (ওঅ্যান্ডএম)। তাতে মোট ৬ কোটি টাকা মতো খরচ হবে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হয়েছে।

বর্ধন জানিয়েছেন, পুজোর আগে বাংলা ভাষায় তো বটেই, সারা ভারতের কথা বিবেচনা করে ইংরেজি ও হিন্দিতেও বিজ্ঞাপন তৈরি হবে। সর্বভারতীয় প্রকাশনা ও চ্যানেলে সেগুলি দেওয়া হবে। দুর্গাপুজোর সময়ে অন্য রাজ্যের পাশাপাশি দেশের বাইরে থেকেও পর্যটক টানতে আগ্রহী রাজ্য পর্যটন দপ্তর।

আগেরটা বদল করা হল কেন? রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী ব্রাত্য বসু বলেন, ‘আগেরটা ভালো ছিল নাকি মন্দ ছিল সেটা বিষয় নয়, আমরা নতুন করে এই রাজ্যকে পর্যটকদের সামনে তুলে ধরতে চেয়েছি। মুখ্যমন্ত্রী চান দেশ-বিদেশের পর্যটকদের কাছে এখনও বাংলার যে সব অংশ অনাবিস্কৃত রয়েছে, সেগুলিকে তুলে ধরতে। তা থেকেই এই নতুন ক্যাম্পেন।’

ভ্রমণপিপাসুদের কাছে এ রাজ্যকে আরও ভালো ভাবে তুলে ধরতে নতুন লোগো ও ক্যাচলাইনের ভাবনা বেশ কিছুদিন ধরেই ছিল রাজ্য সরকারের। ওঅ্যান্ডএম এই নতুন লোগো ও ক্যাচলাইন তৈরি করেছে। তবে রাজ্য সরকার নয়, তা উপযুক্ত হয়েছে কিনা তা দেখে নিয়েছে বিভিন্ন পর্যটন সংস্থা, হোটেল সংস্থা, পর্যটন ও হোটেলগুলির বিভিন্ন সংগঠন এবং বণিকসভাগুলি। ভারতে পশ্চিমবঙ্গই একমাত্র রাজ্য যেখানে হিমালয় ও বঙ্গোপসাগর রয়েছে। এ রাজ্যে সুন্দরবন রয়েছে যেটি ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যের স্মারক। দুর্গাপুজোর মতো আকর্ষনীয় উত্‍সব হয় এ রাজ্যে। সেই সব রং মিলিয়েই ‘বেঙ্গল’ শব্দটি লেখা হয়েছে। ‘বিউটিফুল বেঙ্গল’-এর বদলে নতুন ক্যাচলাইন ‘এক্সপেরিয়েন্স বেঙ্গল, দ্য সুইটেস্ট পার্ট অফ ইন্ডিয়া’।

এই পরিবর্তন প্রসঙ্গে বর্ধন বলেন, ‘বিউটিফুল শব্দটি অনেকেই ব্যবহার করছে, বাংলাদেশে গিয়েও তা দেখেছি। তাই আমরা পর্যটকদের বলতে চাই, নিজেরাই এসে দেখুন এ রাজ্য কেমন। আর সুইটেস্ট বলতে রসগোল্লা-সন্দেশ নয়, এ রাজ্যের মানুষ, তাঁদের ব্যবহার – এ সব বলা হয়েছে। আমরা হিন্দি ও বাংলাতেও ক্যাচলাইন তৈরি করব।’ পর্যটন দপ্তরের ব্রোশিওরও নতুন সাজে সেজেছে।

২০১৩ সালে ‘খুসবু গুজরাট কি’ পর্যটন ক্যাম্পেন করেছিলেন অমিতাভ বচ্চন, সে বছর গুজরাটের পর্যটন পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য তত্‍কালীন নরেন্দ্র মোদী সরকার ৪৮৩ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছিল। ২০১৪-১৫ সালে পশ্চিমবঙ্গ সরকার ২২৩ কোটি টাকা, যা ২০১০-১১ সালের তুলনায় ২০ গুণ বেশি। এ বার নতুন করে বরাদ্দ বাড়ানোর কথা বাজেটে করেননি রাজ্যের অর্থমন্ত্রী। ভারতে সেরা পর্যটন ক্যাম্পেনের জন্য একাধিক বার পুরস্কার পেয়েছে মধ্যপ্রদেশ, তাদের ক্যাচলাইন ‘দি হার্ট অফ ইনক্রেডিবল ইন্ডিয়া’, হিন্দিতে ‘হিন্দুস্থান কা দিল দেখো’।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই