মেইন ম্যেনু

বিতর্কে কে কতটা মিথ্যা বলেছেন?

আসন্ন মার্কিন নির্বাচনের প্রথম প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কে বাগযুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছিলেন অভিজ্ঞ বিতার্কিক হিলারি ক্লিনটন ও সাবেক রিয়েলিটি শো উপস্থাপক ডোনাল্ড ট্রাম্প। ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি একজন ঝানু রাজনীতিক হিসেবে পরিচিত আর ট্রাম্প একজন সফল ব্যবসায়ী। দু’জনের এই বিতর্ক উপভোগ করেছেন বিশ্বের ১০ কোটির বেশি মানুষ। বিতর্ক চলাকালে কে কতটা বাস্তব কথা বলেছেন, কতটা সঠিক তথ্য দিয়েছেন তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে সাধারণ দর্শকদের। বিবিসি ও গার্ডিয়ান অবলম্বনে তাদের বক্তব্যের সত্য-মিথ্যা তুলে ধরা হল-

ইরাক যুদ্ধের সমর্থক ট্রাম্প : হিলারি অভিযোগ করেছেন, ২০০৩ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের ইরাক যুদ্ধ সমর্থন করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ট্রাম্প বারবার তার জোর দিয়ে বলেছেন, তিনি ইরাক যুদ্ধের বিরোধী ছিলেন।

বাস্তবতা পরীক্ষা : ইরাক যুদ্ধ শুরু হওয়ার আগে এর বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে কখনও কথা বলেননি ট্রাম্প। ২০০২ সালের ১১ সেপ্টেম্বর রেডিও উপস্থাপক হাওয়ার্ড স্টার্ন ট্রাম্পকে প্রশ্ন করেছিলেন তিনি সম্ভাব্য ইরাক যুদ্ধ সমর্থন করেন কি না। উত্তরে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘হ্যাঁ, আমি তাই মনে করি।’ বিতর্কের সময় ট্রাম্প বলেন, আমি ওই কথাটা বলেছিলাম বিক্ষিপ্তভাবে। ট্রাম্প বলেন, ‘আমার বক্তব্য ছিল একান্ত ব্যক্তিগত।’ ফক্স নিউজের সেন হ্যানিটিকে তিনি বলেছিলেন, ‘ইরাক যুদ্ধ মধ্যপ্রাচ্যকে অস্থিতিশীল করতে পারে।’ তাই যুদ্ধ সমর্থনের জোরালো কোনো প্রমাণ নেই। তবে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর তিনি এ হামলা নিয়ে সন্দেহ শুরু করেছিলেন।

বাবার কাছে ধার নিয়েছিলেন ট্রাম্প : হিলারি বলেছেন, ট্রাম্প জীবনে বড় ভাগ্যবান ছিলেন। তিনি তার বাবার কাছ থেকে ১ কোটি ৪০ লাখ ডলার ধার নিয়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন।

বাস্তবতা পরীক্ষা : ১৯৭৪ সালে ট্রাম্প তার রিয়েল স্টেট মোগল বাবার কাছ থেকে ১০ লাখ ডলার নিয়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন। টাকার জন্য জীবনে তাকে সংগ্রাম করতে হয়নি।

১ কোটি কর্মসংস্থান করবেন হিলারি : ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি বলেছেন, জনগণ আমাদের দু’জনের পরিকল্পনা জেনেছে। আমি ক্ষমতায় গেলে ১ কোটি কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। অন্যদিকে, ট্রাম্প ক্ষমতায় গেলে ৩৫ লাখ মানুষ চাকরি হারাবেন।

বাস্তবতা পরীক্ষা : এই দাবি হিলারি আগেও করেছেন। মূলত, মুডি অ্যানালিটিকস নামের একটি গবেষণা সংস্থা বলেছে, ‘হিলারি ক্লিনটনের অর্থনৈতিক পরিকল্পনা পুরোপুরি বাস্তবায়িত হলে ৩২ লাখ থেকে ১ কোটি কর্মসংস্থান হওয়া সম্ভব। তবে এটা সত্যি এর পুরোপুরি বাস্তবায়ন সম্ভব নয়।’ একই সংস্থা ট্রাম্পের পরিকল্পনা নিয়ে বলেছে, এতে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দেবে এবং ৩৫ লাখ লোক চাকরি হারাবে। তবে এ রিপোর্টের তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে অর্থনীতিবিদ মার্ক জানদি সিএনএন মানিকে বলেছিলেন, ট্রাম্পের নীতিতে বড় জোর চার লাখ মানুষ চাকরি হারাতে পারে।

ট্রাম্পের আয়করে ঘাপলা আছে : হিলারি বলেছেন, ট্রাম্প তার আয়কর প্রকাশ করছেন না, কারণ সেখানে বড় ধরনের ঘাপলা আছে। হয়তো ট্যাক্স ফাঁকি দিয়েছেন। তবে ট্রাম্পের দাবি, সরকারি বিভাগ থেকে তার আয়কর অডিট চালু রয়েছে। অডিট শেষ না হলে তিনি এটা প্রকাশ করতে পারছেন না। এতে কোনো সমস্যা নেই।

বাস্তবতা পরীক্ষা : যুক্তরাষ্ট্রের রাজস্ব বিভাগ ট্রাম্পের সম্পদের অডিট করছে তবে আয়কর প্রকাশে কোনো বাধা নেই। ট্রাম্প বলেছেন, গত পাঁচ বছরে ১০ কোটি ২০ লাখ ডলার দাতব্য কাজে দিয়েছেন। তবে ওয়াশিংটন পোস্টের এক অনুসন্ধান অনুযায়ী ২০০৮ সালের পর দাত্য কাজে কোনো টাকা দেননি ট্রাম্প।

টিপিপি চুক্তি গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড- হিলারি : ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন, আন্তঃপ্রশান্ত মহাসারীয় অংশীদারিত্ব চুক্তিকে (ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারশিপ-টিপিপি) ‘গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড’ (স্বর্ণমানের) বলে দাবি করেছিলেন হিলারি। তবে হিলারি এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, আমি বলেছিলাম আশা করি এটা একটা গুড ডিল (ভালো চুক্তি) হবে।

রিয়েলিটি চেক : ২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়ে হিলারি বলেছিলেন, ‘স্বচ্ছ, নায্য ও মুক্তবাণিজ্যের জন্য টিপিপি চুক্তি গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড।’

ওবামার আমলে শিকাগোয় ৪ হাজার মানুষ হত্যা : ট্রাম্প বলেছেন, বারাক ওবামা ক্ষমতায় আসার পর শিকাগোয় অন্তত ৪ হাজার মানুষকে হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে।

বাস্তবতা পরীক্ষা : শিকাগো ট্রিবিউনের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৫ সালে শিকাগোতে ২৯৮৮ জন নিহত হয়েছেন এর মধ্যে ৪৮৮ জন বন্দুক দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। চলতি বছর ২১০০ জনের বেশি বন্দুক হামলার শিকার হন।






মন্তব্য চালু নেই