মেইন ম্যেনু

বিদেশিদের ওপর আরো হামলার আশঙ্কা ব্রিটেনের

বাংলাদেশে পশ্চিমা দেশগুলোর নাগরিকদের লক্ষ্য করে আরো হামলা হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে ব্রিটেন।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্র দফতরের ওয়েবসাইটে শুক্রবার নতুন করে এ সতর্কবার্তা দেওয়া হয়। এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করেছিল যুক্তরাজ্য। তার তিনদিন আগে অস্ট্রেলিয়াও একই ধরনের সতর্কতা জারি করেছিল।

শুক্রবার নতুন করে নাগরিকদের বাংলাদেশ ভ্রমনে সতর্ক করে দিয়ে ব্রিটিশ ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিসের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, সরকারের সঙ্গে ‘বিরোধি দল’ বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের উত্তেজনাপূর্ণ সম্পর্ক বিরাজ করছে। চলতি বছরের জানুয়ারিতে ‘বিরোধি দল’ দেশব্যাপি সড়ক, নৌ ও রেলপথ অবরোধ এবং হরতাল কর্মসূচি পালন করেছে।

কয়েক মাস এ ধরণের কর্মসূচি অব্যাহত ছিল এবং এ সব ঘটনায় বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছে। এছাড়া গণপরিহণেও হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে গত এপ্রিল থেকে রাজনৈতিকভাবে প্রভাবিত ভাঙচুর ও সহিংসতা বেশ কমে এসেছে।

বিবৃতিতে নাগরিকদের সতর্ক করে দিয়ে বলা হয়, প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল যে কোন সময় সহিংসতায় রূপ নিতে পারে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বিক্ষোভকারীরা সহিংসতায় জড়িয়ে পড়তে পারে। হঠাৎ করেই পুরো দেশে বিশেষ করে প্রধান শহরগুলিতে সহিংস হামলা, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর ছড়িয়ে পড়তে পারে।

সম্প্রতি দুজন বিদেশি হত্যার ঘটনা উল্লেখ করে এতে বলা হয়, ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড লেভান্ট এই হামলার দায় স্বীকার করেছে। পশ্চিমাদের ওপর আরো হামলা হতে পারে এবং তা হতে পারে নির্বিচারে।

বাংলাদেশ সফরকারিদের বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়ে ওয়েবসাইটে বলা হয়, বিশেষ করে যেসব অনুষ্ঠানে পশ্চিমা দেশের নাগরিকরা সমবেত হন, সেগুলোতে যোগদানের সময় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ঢাকায় একজন ইতালিয়ান এবং রংপুরে এক জাপানি নাগরিককে অজ্ঞাতনামা বন্দুকধারীরা হত্যা করার পর বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই