মেইন ম্যেনু

বিদেশে পলাতক আরো ৮ আসামির অবস্থান শনাক্ত

বিভিন্ন মামলায় বিদেশে অবস্থানরত ১৯ আসামির অবস্থান শনাক্ত ও গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। ইতিমধ্যে ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি ৮ জনের অবস্থান শনাক্ত করা হয়েছে। শিগগিরই তাদের গ্রেপ্তার করে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানায় ‍পুলিশ সদরদপ্তর।

এতে জানানো হয়, পুলিশ সদরদপ্তরের এনসিবি শাখা ইন্টারপোলের মাধ্যমে অন্যান্য এনসিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে বিগত পাঁচ বছরে বিভিন্ন দেশে পালিয়ে থাকা কামরুলসহ (শিশু রাজনের হত্যাকারী) ১০ জন আসামিকে দেশে ফেরত এনে আদালতে সোপর্দ করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রাণনাশের চেষ্টা মামলার আসামি নাজমুল মাকসুদ মুরাদকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আনা হয়েছে। এছাড়াও উত্তর কোরিয়া থেকে শিমুল, আবুধাবি থেকে নরসিংদীর পৌর মেয়র লোকমান হত্যা মামলার সাথে জড়িত তারেক আহমেদ, মালয়েশিয়া থেকে নরসিংদীর পৌর মেয়র লোকমান হত্যা মামলার সাথে জড়িত নুরুল ইসলাম, যুক্তরাষ্ট্র থেকে সাজাপ্রাপ্ত আসামি আবুল কালাম ওরফে আবুল কালাম, সিংগাপুর থেকে হত্যা মামলার পলাতক আসামি ফারুক হোসেন, মালয়েশিয়া থেকে রমনা থানা মসজিদের ইমাম হত্যা মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি আবদুর রহিম, সৌদি আরব থেকে খুনের অপরাধে অভিযুক্ত আসামি আবু তাহের আল নূর মিয়া এবং নিউজিল্যান্ড থেকে খুনের অপরাধে অভিযুক্ত আসামি আব্দুর রহিম মিয়া ওরফে গফুরকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

এছাড়া, পুলিশ সদরদপ্তরের এনসিবি শাখা বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা, জেল হত্যা মামলা, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল মামলা, চট্টগ্রামের ৮ খুন মামলা, নারায়ণগঞ্জের ৭ খুন মামলার পলাতক আসামিসহ বিদেশে পলাতক ১৯ জন আসামির অবস্থান শনাক্ত এবং গ্রেপ্তার করে দেশে ফিরিয়ে আনার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে ১১ জনের অবস্থান শনাক্ত করে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি ৮ জনের অবস্থান শনাক্ত করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। শিগগিরই প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।






মন্তব্য চালু নেই