মেইন ম্যেনু

ওয়ার্ল্ড ভিশন, সাতক্ষীরা এডিপি’র আয়োজনে শিশু বিবাহ রোধে আলোচনা সভা

বিবাহের ক্ষেত্রে শিশুদের বয়স নির্ধারণের জন্য জন্ম সনদ-ই একমাত্র দলিল

আব্দুর রহমান, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : বাংলাদেশ একটি জনবহুল দেশ। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ ও মানবসম্পদ উন্নয়নের স্বার্থে এদেশে নারী-পুরুষের আইন সম্মত বিবাহের বয়স ১৮ ও ২১ বছর হলেও প্রতিদিনই ঘটছে বাল্যবিবাহের ঘটনা। বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে স্কুলপড়ুয়া শিশুরাই বেশি বাল্যবিবাহের শিকার হয়। ফলে বেশিরভাগ মেয়েদের শিক্ষাজীবন শিশু বয়সে শেষ হয়ে যাচ্ছে। মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার শুরু থেকেই বাল্যবিবাহ ও অন্যান্য আর্থ-সামাজিক কারণে কন্যাশিশুরা ঝরে পড়ছে।

মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাজীবন সফলভাবে শেষ করার আগেই দেশের বেশিরভাগ কন্যাশিশুরা বাল্যবিবাহের ফাঁদে পড়ে শিক্ষাজীবনের ইতি টানতে বাধ্য হচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে সাতক্ষীরায় মঙ্গলবার সকালে শহরের ক্যাথলিক চার্চ ট্রেনিং রুমে জেন্ডার প্রজেক্ট, ওয়ার্ল্ড ভিশন, সাতক্ষীরা এডিপি’র আয়োজনে শিশু বিবাহ রোধে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সভায় ওয়ার্ল্ড ভিশন, সাতক্ষীরা এডিপির প্রজেক্ট ম্যানেজার সুরভী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ভিশনের নির্বাহী পরিচালক অপরেশ পাল, সিবিএ’র সভানেত্রী ফরিদা আক্তার বিউটি, দৈনিক কাফেলার চীফ রিপোর্টার এম. ঈদুজ্জামান ইদ্রিস, সিডো’র নির্বাহী পরিচালক শ্যামল দত্ত, মহিলা সমিতি’র নেত্রী লিলি প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, ‘শিশু বিবাহ আমাদের সমাজের একটি মারাত্বক ব্যাধি হিসেবে দেখা দিয়েছে। শিশু বিবাহের ফলে মাতৃ মৃত্যুর হার এবং অধিক বিবাহ ও শিশু নির্যাতন অধিক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। সমাজে জন-সচেতনা এবং আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে এটি রোধ করা সম্ভব। শিশুদের ভুমিষ্ট হওয়ার সাথে সাথে তার জন্ম নিবন্ধন নিশ্চিত করতে হবে।

বর্তমান আমাদের সমাজে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে যে বিবাহ সম্পন্ন হচ্ছে প্রকৃতপক্ষে সেটি কোন বিবাহ নয়। এছাড়া শিশুদের বয়স নির্ধারণের ক্ষেত্রে একমাত্র জন্ম সনদ-ই বয়স প্রমাণের একমাত্র দলিল। সমাজে শিশু বিবাহ বন্ধ করতে হলে কাজী, পুরোহিত, নোটারী পাবলিক ও অভিভাবকদের শপথ নিতে হবে। তাহলে শিশু বিবাহ রোধ করা সম্ভব।

উন্মুক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন দৈনিক আজকের সাতক্ষীরার মফস্ফল সম্পাদক শাহ্ আলম, দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার নিজস্ব প্রতিনিধি মোঃ আব্দুর রহিম, দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি নাজমুল হক, স্টাফ রিপোর্টার মেহেদী আলী সুজয়, দৈনিক দক্ষিণের মশাল পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক মাহফিজুল ইসলাম আককাজ, দৈনিক কাফেলার স্টাফ রিপোর্টার মোঃ আব্দুর রহমান, দৈনিক যুগের বার্তার স্টাফ রিপোর্টার খন্দকার আনিছুর রহমান আনিস, কাজী নজিবুল ইসলাম, বরষা এনজিও’র নাজমুল আলম মুন্না, এম. বেলাল হোসেন,আব্দুল্লাহ আল মামুন, আব্দুল আজিজ, শিশু ফোরামের সহ সভানেত্রী মরিয়ম প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই