মেইন ম্যেনু

বিমান দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেলেন বরিশালের জেলা প্রশাসকসহ অর্ধশত যাত্রী

কল্যাণ কুমার চন্দ, বরিশাল : দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার কারনে বরিশাল বিমানবন্দরে অবতরন করতে পারেনি বেসরকারী বিমান ইউএস বাংলা। প্রায় ৩০ মিনিট বরিশালের আকাশে অবস্থান করে পুনরায় ঢাকা বিমানবন্দরে ফিরে যায় যাত্রীবাহি বিমানটি। কিন্তুসেখানেও অবতরন করতে না পারায় অবশেষে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে বিমানটি অবতরন করতে সক্ষম হয়।

ফলে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন বরিশালের জনপ্রিয় জেলা প্রশাসক ড. গাজী মোঃ সাইফুজ্জামানসহ বিমানের অর্ধশত যাত্রী। দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়া কাটিয়ে অবশেষে বুধবার সকাল আটটায় চট্টগ্রাম থেকে যাত্রীদের নিয়ে বিমানটি বরিশালে এসে পৌঁছেছে। বরিশাল বিমান বন্দর কর্মকর্তা মোঃ হানিফ গাজী জানান, মঙ্গলবার দুপুর ২টা ১০ মিনিট নির্ধারিত সময় হলেও বিকেল পৌনে তিনটার দিকে ঢাকা থেকে যাত্রীনিয়ে বিমানটি বরিশালের উদ্দেশ্যে উড্ডয়ন করে। একই সময় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট বরিশালের উদ্দ্যেশে যাত্রা করে। বাংলাদেশ বিমান ইউএস বাংলার ১০ মিনিট আগে বরিশাল বিমান বন্দরে পৌঁছানোর কারনে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া ছাড়াই বিমানটি অবতরন করতে পেরেছে। কিন্তু বেসরকারী ইউএস বাংলা দেরীতে আসার কারনে দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার কবলে পড়ে। এসময় বিমানটি প্রায় ৩০ মিনিট ধরে বরিশালে অবতরনের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। এরপর আকাশ থেকেই বিমানটি পুনরায় ঢাকা বিমান বন্দরের উদ্দেশ্যে চলে যায়। সেখানেও বিমানটি অবতরন করতে না পেরে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে গিয়ে অবতরন করে। চট্টগ্রাম থেকে যাত্রীনিয়ে বুধবার সকাল আটটায় বিমানটি বরিশাল বিমান বন্দরে এসেছে বলেও তিনি (হানিফ গাজী) উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বিকেল তিনটার পর পরই বরিশালে ঝড়ো বৃষ্টি শুরু হয়। কিন্তু তার পূর্বেই ঢাকা থেকে যাত্রীনিয়ে বিমানটি বরিশালের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। বরিশাল আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র অবজারভার প্রনব কুমার রায় জানান, বিকেল তিনটা ২০মিনিটের সময় শুরু হওয়ায় ঝড়ে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিলো ৩৮ কিলোমিটার। বৃষ্টিপাত হয়েছে ৩০ মিলিমিটার।






মন্তব্য চালু নেই