মেইন ম্যেনু

বিরল প্রজাতির দু মুখো সাপ কোটি টাকা বিক্রি!

বিরল প্রজাতি নাকি বিবর্তনের কোনো কারণে এমন হয়েছে? উত্তর খুঁজবেন বিশেষজ্ঞরা৷ তবে দু মুখো সাপটাকে পেয়েই ভাল দাম পাবেন এমনই আসা করেছিল চোরাকারবারিরা৷ কিন্তু বিরল প্রজাতির এই দু মুখো সাপটি বিক্রির সময় হাতে নাতে ধরা পড়েন তারা। তাদের ঠিকানা এখন হাজতে। আর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বেঙ্গালুরুর চিক্কাজালায়৷

পুলিশ জানায় ওই চারজন এক কোটি টাকা দিয়ে বিরল দু মুখো বোয়া প্রজাতির সাপ বিক্রি করছিল৷ উদ্ধার করা সেই দু মুখো সাপ বানারঘাটা ন্যাশনাল পার্কে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বনবিভাগ৷ সাপটির গায়ের রঙ পুরো লাল আর দু-দিকেই মুখ রয়েছে৷ এই সাপ চোরাকারবারিদের কাছে খুবই লোভনীয়৷ দু মুখো সাপ ভালো ভাগ্যের সহায়ক৷ এমনই কুসংস্কারের কারণে বহু টাকায় বিক্রি করা হয় এই দু মুখো সাপ৷ বিশেষ করে যারা লোক ঠকাতে কালো জাদু করে তারা এই সাপ ব্যবহার করে৷ কিছু দেশে এটি চিকিৎসার কাজেও লাগে৷ এই ধরনের সাপ মূলত দেখতে পাওয়া যায় বেঙ্গালুরুর বাগেপাল্লি, মুলাবাগাল, সিরা, তুমাকুরু প্রভৃতি জায়গায়৷ এই ধরনের সাপ মূলত পাচার করা হয় জাপান, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর ও চীনে৷

চিক্কাজালার পুলিশ জানিয়েছে, গোপন সূত্রে খবর পাই বেঙ্গালুরুর একটি কলেজের কাছে কয়েকজন চোরাকারবারি একটি দু মুখো সাপ নিয়ে দর কষাকষি করছে৷ তখনই অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়৷ উদ্ধারের পর বিরল দু মুখো সাপটিকে ডিমের সাদা অংশ খাওয়ানো হয়৷ পরে বনদফতরের কর্মীরা পুলিশের কাছ থেকে সেই সাপ নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যান।-কলকাতা২৪






মন্তব্য চালু নেই