মেইন ম্যেনু

বিরাট সংবর্ধনা পেতে যাচ্ছেন মোশাররফ!

প্রেমিকার জন্য গান শিখেন গানের রাজা ইরান আলী (মোশাররফ করিম)। একটা প্রতিযোগিতায় সে সতেরো নং স্থানও অধিকার করে। তবুও প্রেমিকার মন জয় করতে পারেন না। বেঁচে নেয় ভিন্ন একটি পথ। এমনই এক কাহিনী নিয়ে গড়ে উঠেছে ঈদের নাটক ‘একটি বিরাট সংবর্ধনা’। সাগর জাহানের রচনায় ও শেখ সেলিমের পরিচালনায় নাটকে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, ফারিয়া শাহরিন, মনিরা মিঠু, এসএম মহসিন, মিলন ভট্র, তারিক স্বপন প্রমুখ।

নাটকে দেখা যাবে, টিভি রিয়েলিটি শো উটমার্কা বল সাবান গানের রাজা প্রতিযোগীতার সতের নম্বর গানের রাজা ইরান আলী। সতেরো নাম্বার হলেও মনে মনে তার খুব গর্ব। তার ভাবনা- পনেরো কোটি মানুষের ভেতর সে ষোল জনের পরে। যা তা ব্যাপার না! তার গ্রামে আসা দিয়ে গল্পের শুরু। ইরান আগের থেকেই তার বন্ধুদের টাকা দিয়ে রেখেছিলো সে গ্রামে আসলে যেন তাকে একটা সংবর্ধনা দেয়া হয়। কিন্তু গ্রামে ঢুকেই সে যখন দেখে মাত্র চারপাঁচজন ছেলেমেয়ে ফুলের মালা হাতে তাকে সংবর্ধনা দেয়ার জন্য দাড়িয়ে আছে তখন তার মেজাজ খারাপ হয়ে যায়। আরো মেজাজ খারাপ হয় যখন সে বাড়িতে গিয়ে দেখে সেখানেও তার সংবর্ধনা দেয়ার কোন আয়োজন নেই। সে যাকে ভালোবাসে তার নাম সাবিনা। সাবিনা অবশ্য তাকে ভালোবাসেনা। কারণ সে অন্য একজনের বাগদত্তা। তবুও ইরান তাকে ভালোবাসে। পাগলের মতই ভালোবাসে। আর এই ভালোবাসার জন্যই, সাবিনা পছন্দ করে বলেই তার গান শেখা। কষ্ট করে গান শেখা। এই সতেরো নাম্বার হয়ে আসার পরে সাবিনাও তাকে খুব একটা পাত্তা দেয় না। আর এতেই রাগ হয়ে ইরান সিদ্ধান্ত নেয়- সে এই গ্রামে এমপি ডিসি এসপিকে এনে সংবর্ধনা নেবে। মানুষকে সে দেখিয়ে দেবে সে আসলে কত বড় শিল্পী।

এই কাজের দায়িত্ব সে দেয় তার খুব কাছের বন্ধু ছোটভাই তপন এবং তোজামকে। এক লাখ টাকাও দেয় তাদেরকে খরচ বাবদ। কিন্তু তপন তোজাম এই টাকা মেরে দেয়, কাউকে আনার ব্যবস্থা করে নাই। ঘটনার মোড় নেয় অন্যদিকে।

আসছে ঈদুল ফিতরে স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভিতে প্রচার হবে বিশেষ নাটক ‘একটি বিরাট সংবর্ধনা’।






মন্তব্য চালু নেই