মেইন ম্যেনু

বিল গেটস এর প্রেম কাহিনী

সম্পর্কের ভাঙা-গড়ার প্রাবল্য যেখানে অনেক বেশি, সেই পাশ্চাত্যের মানুষ হয়েও প্রায় দুই যুগ একসাথে আছেন বিশ্বখ্যাত এক দম্পতি। বিল গেটস আর মেলিন্ডা গেটস। ২১ বছর ধরে সংসার করছেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা আর তাঁর স্ত্রী। বিয়ের আগের প্রণয়পর্ব ৭ বছরের। তবে কীভাবে সম্ভব হয়ে উঠেছিলো সম্পর্কটা? কেমন ছিল তাদের পরিচয়ের সূত্রপাত? এওএল’র মেকার্স সাইটকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে সে ঘটনাই বর্ণনা করলেন মেলিন্ডা নিজে।

১৯৮৭ সালে প্রডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে মাইক্রোসফটে যোগ দেন মেলিন্ডা। এর কিছুদিন পরেই মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেইটসের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। দুজনের মধ্যে ধীরে ধীরে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। কয়েক মাস পর হঠাৎ করে মেলিন্ডাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে বসেন বিল। মেলিন্ডা জানান, “একদিন বিল বললো, মেলিন্ডা তুমি আমাকে তোমার ফোন নাম্বারটা দিলে আমরা কয়েকদিনের জন্য বাইরে থেকে ঘুরে আসতে পারতাম। তা হতে পারে আজ থেকে দু’ সপ্তাহের জন্য। শুরুতে বিলের সে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন তিনি। বিলের প্রতি মেলিন্ডার উত্তর ছিল এমন- “আজ থেকে দুই সপ্তাহ পর্যন্ত তোমার সাথে কী করব আমি? তোমার সাথে তো আমার সম্পর্কটা অত সাবলীল না।”

মেলিন্ডা বলেন, “তারপরও কিছুতেই ছাড় দিতে নারাজ বিল গেটস। এক ঘন্টা পর ফোন দিলো আমাকে। বললো এখন কি তোমার কাছে আমাকে স্বতঃস্ফুর্ত মনে হচ্ছে? অবশেষে বিলের প্রস্তাবে সায় দিলেন মেলিন্ডা।

বিল গেটস বান্ধবী মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চের সঙ্গে প্রায় সাত বছরের সম্পর্কের পর মাইক্রোসফট সাম্রাজ্যের অধিপতি বিল গেটসের মনে একদিন সেই প্রশ্নের উদয় হয়েছিল। আর তখনই একটা আস্ত বিমান ভাড়া করে সখীকে নিয়ে তিনি উড়ে গিয়েছিলেন নেব্রাস্কা রাজ্যের ওমাহায়। বিমানে আর কোনো যাত্রী না থাকায় বলা যাচ্ছে না যে যাত্রাপথে বিল মেলিন্ডাকে ঠিক কী বলেছিলেন। তবে, বিমান থেকে নেমেই এই জুটি সোজা একটি অভিজাত জুয়েলারির দোকানে ঢুকে পড়ে। তাঁদের অভ্যর্থনা জানাতে কে উপস্থিত ছিলেন? বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী ওয়ারেন বাফেট। আসলে তিনিই দোকানটা খোলা রাখার ব্যবস্থা করেছিলেন, যাতে এই প্রেমিক জুটি নিরিবিলি বাগদানের আংটি পছন্দ করতে পারে। বাগদানের আংটি তো হলো, কিন্তু বিয়ের অনুষ্ঠান। নির্বিঘ্নে বিয়ে সারতে হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের পুরো মানালে বে হোটেলটাই ভাড়া করেছিলেন বিল। ১৯৯৪ সালের ১ জানুয়ারী তারা বিয়ে করেন। তাদের তিনটি সন্তান রয়েছে যারা হল মেয়ে জেনিফার ক্যাথেরিন ও ফোবি অ্যাডেলি এবং একমাত্র ছেলে ররি জন।






মন্তব্য চালু নেই