মেইন ম্যেনু

বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়েই লন্ডনে মমতা!

লন্ডনে সফরে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চিরাচরিত সেই হাওয়াই চপ্পল পরেই বিলেত যাত্রা করেন তিনি। সঙ্গে রয়েছেন ৪৮জন শিল্পপতি। রয়েছেন রাজ্য সরকারের একঝাঁক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সহ শিল্প-সংস্কৃতি জগতের ১১ জন সদস্য। লক্ষ্য বিদেশে লগ্নি সন্ধান। খবর ভারতীয় মিডিয়ার।

ইউ কে -ইন্ডিয়া বিজনেস কাউন্সিল এবং ফিকির প্রতিনিধিদের সঙ্গে জর্জ স্ট্রিটে বৈঠক করবেন মমতা। বৈঠক করবেন ব্রিটেনের কর্মসংস্থান দফতরের মন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল এবং প্রাক্তন ক্যাবিনেট মন্ত্রী প্যাট্রিসিয়া হিউইটের সঙ্গেও। এই সফরে সরকারি ও বেসরকারি স্তরে একগুচ্ছ মউ স্বাক্ষরিত হবে।

প্রশ্ন উঠেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতার লন্ডনে সফর কী কেবল লগ্নি সন্ধানের জন্যই? একটি মিডিয়ার খবরে বলা হয়, মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে থেকেই কলকাতাকে লন্ডন বানানোর কথা বলে এসেছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী হয়ে সেই স্বাদ পূরণের পথে হাঁটাও শুরু করেছেন নিজের মতো করে। টেমস নদীর ধার যেমন সুসজ্জিত, তেমনই স্ট্র্যান্ড রোড বরাবর গঙ্গার পাড় সাজিয়ে তুলেছেন অনেকটাই। ‘লন্ডন আই’-এর মতো ‘কলকাতা আই’ বসানোর উদ্যোগেও কমতি নেই। পরিবেশ আদালতের সাম্প্রতিক এক নির্দেশে আপাতত সেই কাজ অবশ্য থমকে। তবু কলকাতাকে লন্ডনের তুল্য করার স্বপ্ন দেখতে তিনি নাছোড়।

এ বার আক্ষরিক অর্থেই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে সেই লন্ডনে প্রথম পা রাখলেন মমতা। কলকাতা থেকে সকালে যাত্রা করে দিল্লি, তার পরে সেখান থেকে লন্ডন। যখন নামলেন, লন্ডনে তখন প্রায় সন্ধে ৭টা, কলকাতায় মাঝরাত। হিথরো বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান ভারতীয় হাইকমিশনার রঞ্জন মাথাই। এভাবেই বৃষ্টিভেজা লন্ডনে শুরু হলো মমতার চার দিনের সফর।
তথ্যসূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা ও জি নিউজ






মন্তব্য চালু নেই