মেইন ম্যেনু

বিশেষ কারনে প্রাসাদ ছেড়ে মাটির ঘরে!

লন্ডনে বিলাসবহুল জীবনে অভ্যস্ত ছিলেন ড্যানিয়েল পিক। টাকা-পয়সা, ধন দৌলতের অভাব ছিল না। কিন্তু শহরের আধুনিক জীবনে ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তাই শহুরে চাকচিক্য ছেড়ে ঘর বাঁধেন জঙ্গলে। নিজের তৈরি করা মাটির কুড়েঘরে এখন তার বাস। প্রকৃতির কাছে আদিমতার ছোঁয়ায় ভুলে গেছেন প্রাচুর্যতার মোহ।

ডেইলি মেলের এক খবরে বলা হয়েছে, চার বছর আগে ড্যানিয়েল পিক শহর ছেড়ে উত্তর লন্ডনের অনেক দূরে জঙ্গলে এসে ঘর বাঁধেন। কাদামাটি, খড়কুটো আর কাঠ দিয়ে তৈরি করেন কুড়েঘর। ঘরটি তৈরি করতে তার ছয় মাস সময় লাগে। ঘরটিতে জানালাও রয়েছে। এছাড়া জীবন যাপনের সব সুবিধাই রয়েছে তার এই মাটির ঘরে।

রাতে আলোর জন্য সোলার প্যানেলও বসিয়েছেন ড্যানিয়েল। রয়েছে বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা। খালের পানির মধ্যে বিশেষ যন্ত্র বসিয়ে পানিকে বিশুদ্ধ করার উপায় বের করেছেন তিনি।ড্যানিয়েল দিনের বেশিরভাগ সময় কাটান ধ্যান করে। এছাড়া খন্ডকালীন কাজও করেন। বাড়ির আশেপাশে সবজি চাষ করেন।বসতবাড়ির উঠান আরো বিস্তৃত করতে চাইছেন তিনি।

ড্যানিয়েলের মাটির তৈরি ঘরে রান্না করার সব জিনিসপত্রই রয়েছে। ঘরের ভেতরেই রয়েছে আগুন জ্বালানোর ব্যবস্থা। বাকী জীবন এখানেই থাকার চিন্তা করছেন ড্যানিয়েল।তবে বন কর্তৃপক্ষ ড্যানিয়েলকে চলে যেতে বলেছে। কিন্তু নিজের তৈরি করা সংসার বাড়ি ছেড়ে কোথাও যেতে রাজি নন ড্যানিয়েল।

তার ভাষ্য, শহুরে জীবনে অনেক ক্লান্তি চলে এসেকছিল। তাই চার বছর আগে এই জঙ্গলে এসে মাটি দিয়ে ঘর তৈরি করি। মাটির ঘরকেই আমার নিজের বাড়ি মনে হয়। আমি এখানে অনেক ভালো আছি। জীবনের বাকি সময় মাটির এই কুড়েঘরেই থাকতে চাই।
ড্যানিয়েল পিকের মাটির তৈরি এই ঘরটি গুগল মানচিত্রেও দেখা যায় বলে খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই