মেইন ম্যেনু

বিশ্বকাপে পাকিস্তান-ভারত ম্যাচ আয়োজন নিয়ে শঙ্কা

দুইদিন আগেই মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে হয়ে গেল ভারত-পাকিস্তান মহারণ। ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে মানেই আলাদা উম্মাদনা। উত্তেজনার বারুদ ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বজুড়ে। ক্রিকেটভক্তরা তুমুল আগ্রহ নিয়ে এ ম্যাচ দেখে থাকেন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আগামী ১৯ মার্চ আবারো এ দুই দলের লড়াই হওয়ার কথা। তবে তার আগে ধর্মশালায় অনুষ্ঠিতব্য এ ম্যাচ আয়োজন নিয়ে শুরু হয়েছে শঙ্কা।

ধর্মশালায় ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ না করতে বিসিসিআই-এর কাছে আবেদন জানিয়েছে হিমাচল প্রদেশ কংগ্রেস। ধর্মশালার অনেক সৈন্য প্রাণ দিয়েছেন কার্গিল যুদ্ধে। মূলত সে সকল শহীদদের স্মৃতির কথা মাথায় রেখে এখানে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ আয়োজন না করতে অনুরোধ জানিয়েছেন কংগ্রেস কর্তারা। আর ধর্মশালায় ম্যাচ আয়োজন নিয়ে বিসিসিআই সেক্রেটারি ও বিজেপি সাংসদ অনুরাগ ঠাকুরকে দুষছেন।

কংগ্রেস কমিটির প্রেসিডেন্ট ঠাকুর সুখবিন্দর সিং ভারতীয় এক পত্রিকাকে বলেন, ‘বিসিসিআই-এর উচিত ভারত-পাকিস্তানের এ ম্যাচ বাতিল করা অথবা ভেন্যু পরিবর্তন করা। কার্গিল যুদ্ধে নিহত ভারতীয় সৈন্যদের সম্মান জানানো উচিৎ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের।’

ধর্মশালায় এ ম্যাচ নিয়ে কংগ্রেসকে সমর্থন জানিয়েছেন ভারতের সাবেক সৈন্যরাও। প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে তারা জানান, ‘পাঠানকোটে হামলার পর যদি দু’দেশের কূটনৈতিক স্তরে কথাবার্তা বন্ধ হয়, তাহলে ক্রিকেট ম্যাচ নয় কেন?

উল্লেখ্য, কার্গিল যুদ্ধে ধর্মশালার সন্তান শহীদ ক্যাপ্টেন বিক্রম বাত্রা ও ক্যাপ্টেন সৌরভ কালিয়া নিহত হন। এই শহীদদের স্মরণে স্মৃতি সৌধ্যও নির্মিত হয়েছে ধর্মশালা স্টেডিয়ামের কাছেই। তাই সে এলাকায় ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হলে শহীদদের পরিবারের সম্মান ক্ষুণ্ণ হবে বলে মনে করেন স্থানীয় কংগ্রেস নেতারা।






মন্তব্য চালু নেই