মেইন ম্যেনু

বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব : অস্ট্রেলিয়ার ঢাকা সফর নিয়ে নতুন শঙ্কা!

সব শঙ্কার অবসান কয়েকদিন আগেই করে দিয়েছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্তা সংস্থা ফিফা। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশে আসতেই হবে অস্ট্রেলিয়ান ফুটবল দলকে। সূচি অনুযায়ী আগামী ১৪ নভেম্বর ঢাকায় পা রাখার কথা সকারুজদের। আর ম্যাচ হবে ১৭ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। তবে এরই মাঝে অস্ট্রেলিয়া দলের ঢাকা সফর নিয়ে নতুন শংকা তৈরি হয়েছে। যার অনুঘটক হিসাবে কাজ করছে গার্ডিয়ান পত্রিকার এক রিপোর্ট।

বৃহস্পতিবার ‘গার্ডিয়ান’ পত্রিকার এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, আগামী শনিবার ঢাকায় ফিফা একটি নিরাপত্তা প্রতিনিধি দলের সঙ্গে ফুটবল ফেডারেশন অব অস্ট্রেলিয়ার (এফএফএ) বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই বৈঠকের সিদ্ধান্তের নির্ভর করবে অস্ট্রেলিয়া ফুটবল দলের ঢাকা সফর।

এদিকে, অস্ট্রেলিয়া ফুটবল ফেডারেশনের প্রধান নির্বাহী ডেভিড গ্যালপ বলেছেন, খেলোয়াড়দের নিরাপত্তাই তাদের সবচেয়ে বড় উদ্বেগের বিষয়। নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরই ম্যাচ খেলার প্রসঙ্গ। গ্যালপের মতে, আগে ফিফার নিরাপত্তা প্রতিনিধি দলের সঙ্গে তাদের প্রতিনিধিরা আলোচনা করবেন। যেখানে থাকবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের প্রতিনিধিরাও। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের এই ম্যাচ নিয়ে আয়োজকদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা কী, তা আমরা দেখব।

গ্যালপ বেশ দৃঢ় কণ্ঠে বলেছেন, সবার আগে খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা। তারপর ম্যাচ। নিরাপত্তা পরিকল্পনা নিয়ে পুরোপুরি তুষ্ট না হওয়ার আগেই ম্যাচ নিয়ে আগাম কিছু বলা যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেন, ফিফা নিরাপত্তা প্রতিনিধি দল আসবে, এটি তো আগে থেকেই নিশ্চিত করা আছে। তবে আজ পর্যন্ত তাদের আগমনের কোনও সূচি আমরা পাইনি। কোনদিন হবে সেই বৈঠক, তাও বলতে পারছি না। সফর সূচি হাতে আসলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে এশিয়ান জোনে বি গ্রুপে খেলছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। গত তিন সেপ্টেম্বর পার্থে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয় মামুনুলরা। যে ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল ৫-০ গোলে। নিয়ম অনুযায়ী অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা অস্ট্রেলিয়ার। তবে কিছুদিন আগে নিরাপত্তার অজুহাতে বাংলাদেশ সফর বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। তাদের দেখানো পথেই হাঁটতে চাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার ফুটবল দলও। আইসিসির সঙ্গে পারলেও শেষ পর্যন্ত ফিফার সঙ্গে তারা কতটা পেরে উঠে, তা বলা মুশকিলই।






মন্তব্য চালু নেই