মেইন ম্যেনু

বিশ্বের দ্বিতীয় অজ্ঞতম দেশ ভারত!

বিশ্বে এক নম্বর অজ্ঞ দেশ মেক্সিকো। দ্বিতীয় অজ্ঞতম দেশের শিরোপা অর্জন করেছে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত। আর বিচক্ষণতম দেশের স্বীকৃতি পেয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া।

সম্প্রতি এক ব্রিটিশ সমীক্ষায় উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর এই তথ্য। তবে সমীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত ৩৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ছিল না।

৩৩টি দেশের মোট ২৫ হাজার নাগরিকের উপর ‘পেরিলস অব পারসেপসনস’ নামে সমীক্ষা চালায় লন্ডনের মার্কেট রিসার্চ সংস্থা ইপসস মোরি। অসাম্য, ধর্মহীন জনসংখ্যা, নারীর কর্মসংস্থান ও ইন্টারনেট লভ্যতা, গবেষণায় মোট এই ৪টি বিষয়ের উপর প্রশ্ন রাখা হয়েছিল। দেখা গিয়েছে, বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষ উদ্বেগজনক বিষয় নিয়ে বেশি চিন্তা করে থাকেন অথচ অন্যান্য বিষয় নিয়ে কম মাথা ঘামান।

সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, মেক্সিকো ও ভারত বিশ্বের অজ্ঞতম দেশের শিরোপা অর্জন করেছে, কারণ প্রধান চারটি বিষয় সম্পর্কে এই দুই দেশের মানুষের ধারণা সবচেয়ে কম। অন্যদিকে, বিচক্ষণতম রাষ্ট্র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া এবং তার পরই রয়েছে আয়ারল্যান্ড। এই দুই দেশের নাগরিকদের ওই চার বিষয়ে ধারণা স্পষ্ট ও সঠিক।

রাষ্ট্রের অজ্ঞতা মাপার জন্য সাহায্য নেয়া হয়েছে ‘অজ্ঞতার সূচকের’। সমাজের সবচেয়ে বিত্তবানদের সম্পত্তির খোঁজখবর, মেদবহুলতা, ধর্মের সঙ্গে জনজাতির সম্পর্কহীনতা, অভিবাসন, বাবা-মায়ের সঙ্গে বসবাস, নারীর কর্মসংস্থান, গ্রাম্য জীবনযাপন এবং ইন্টারনেট ব্যবহার- এমনই কয়েকটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এই সূচক তৈরি হয়েছে।

সমীক্ষায় জানা যায়, এসক বিষয় নিয়ে বেশিরভাগ ভারতীয় নাগরিকের ধারণা অস্পষ্ট। যেমন, সমাজের বিত্তবানদের হাতে কী পরিমাণ রাষ্ট্রীয় ধন জমা রয়েছে সেই সম্পর্কে অধিকাংশ ভারতীয়র কোনো ধারণা নেই।

2015_12_07_10_32_22_n3PumjYv661CCDym3APEjcYHSCIllU_original
সূত্র : দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট

সমীক্ষা অনুসারে, ভারতের মোট ধনসম্পদের ৭০ শতাংশ বিত্তবানদের দখলে থাকলেও ভারতের সাধারণ মানুষ তা জানেনই না। তেমনই, দেশে ধর্মহীন নাগরিক তাদের মতে মোট জনসংখ্যার ৩৩ শতাংশ দখল করলেও আসলে তা মাত্র ১ শতাংশ।

সমীক্ষার জানাচ্ছে, নারীর কর্সসংস্থান সম্পর্কে সবচেয়ে অজ্ঞানতায় ভুগছে ইজরায়েল। সাধারণ ইজরায়েলবাসীর ধারণা সে দেশের ২৯ শতাংশ নারী রোজগার করেন যেখানে বাস্তব সংখ্যা অনেক বেশি। আবার ভারত, মেক্সিকো, দক্ষিণ আফ্রিকা ও চিলির মানুষ বাস্তবের চেয়ে মহিলা কর্মসংস্থানের হার ঢের বেশি বলে মনে করেন। পাশাপাশি, দেশের রাজনৈতিক পটচিত্রে নারীর অংশগ্রহণের হার অনেক বেশি বলে ধারণা ভারতীয়দের। একই ধারণার বশবর্তী কলম্বিয়া, রাশিয়া ও ব্রাজিল। বাস্তব চিত্রটি কিন্তু এমন আশাপ্রদ নয়।

সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, গ্রামীণ মানুষ সম্পর্কে বেশিরভাগ ভারতীয়র অত্যন্ত নিচু ধারণা রয়েছে। শুধু তাই নয়, অধিকাংশ ভারতবাসীর চোখে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী মানুষের সংখ্যা বাস্তবের চেয়ে অনেক বেশি। অনলাইন ইন্টারনেট ইউজারের সংখ্যা যেখানে ৪১%, জনসাধারণের ধারণায় সেই সংখ্যা অন্তত ৬০%।

এদিকে আর্জেন্টিনার দিকে দেখুন, তাদের বেশিরভাগ মানুষ মনে করেন মোট জনসংখ্যার ৩০% অভিবাসী রয়েছে, কিন্তু বাস্তবে তা ৫% মাত্র!

পৃথিবীর অর্ধেক সম্পদ ভোগ করছে মাত্র এক শতাংশ ধনী- বিশ্বব্যাপী মানুষ এ ধারণা পোষণ করলেও বাস্তবে তা ভোগ করছে প্রায় তিন ভাগ! আবার ব্রিটেনের মানুষ মনে করেন, তাদের ৫৬% মানুষেরই ভালই সম্পদ রয়েছে, কিন্তু বাস্তবে তা ২৩ শতাংশ।

মেক্সিকো, ভারত ও ব্রাজিলের পর অজ্ঞতম দেশ হিসেবে সেরা দশে স্থান করে নিয়েছে পেরু, নিউজিল্যান্ড, কলম্বিয়া, বেলজিয়াম, সাউথ আফ্রিকা, আর্জেন্টিনা ও ইতালি।

এর পরেই যেসব দেশ রয়েছে : রাশিয়া, চিলি, যুক্তরাজ্য, ইজরায়েল, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, কানাডা, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, স্পেন, নরওয়ে, ফ্রান্স, সুইডেন, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পোল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও দক্ষিণ কোরিয়া।






মন্তব্য চালু নেই