মেইন ম্যেনু

বিশ্বের প্রথম দশটি দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ কোনগুলো জানেন?

ভাবে বেহাল বা ধনী দেশ— দুর্নীতির প্রশ্নে কারোর মধ্যেই বিভেদ নেই।

বিশ্বের ১০টি সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ—

১. নাইজেরিয়া— সরকারি অফিসারের ঘুষ খাওয়া থেকে সরকারি প্রকল্পে অর্থ নয়ছয়, এমনকী, বেসরকারি সংস্থাগুলির আর্থিক কারচুপি। এমনই সব কীর্তিতে মহিমান্বিত এই দেশ। কথিত আছে, ঘুষ চাওয়াটা এই দেশে এমন এক পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, লোকে রাস্তা দেখিয়ে দেওয়ার বদলেও ঘুষ চায়।

২. উত্তর কোরিয়া— শীর্ষ শাসক কিম জং এবং তাঁর পরিবার এই দেশে সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত। উত্তর কোরিয়ার বাসিন্দাদের মতে, দেশে উন্নতির কোনও লেশমাত্র নেই। অথচ, যখনই উন্নয়ন প্রকল্পের যাবতীয় অর্থ ঢোকে তখনই তা চলে যায় কিমের নামে।

৩.সোমালিয়া—আজ দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত সোমালিয়া। কোনও স্থায়ী শাসক এখনও পর্যন্ত সেখানে নেই। দুর্নীতির শিরোমণি হিসাবে বিশ্বের নজর কেড়েছে এই দেশ।

৪.ইরাক— যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দেশে এখন উন্নয়নের জোয়ার লেগেছে। কিন্তু, উন্নয়নের একাধিক প্রকল্পে আসা অর্থ মুহূর্তে নয়ছয় হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ।

৫. আফগানিস্তান— এক দশক আগেও আফগানিস্তান ছিল অনুন্নত আর গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত। কিন্তু, এখন সেখানে উন্নয়নের জোয়ার লেগেছে। আর উন্নয়নে আসা অর্থ কোনও না কোনওভাবে মু‌ষ্টিমেয় কিছু ব্যক্তির পকেটস্থ হচ্ছে।

৬. সুদান— আরও এক দুর্নীতিপরায়ণ দেশ। শুধুমাত্র দুর্নীতিকে নিজের কুক্ষিগত করে রাখতে নাকি এই দেশের মানুষ যুদ্ধের মতো হিংসায় জড়িয়ে পড়ে।

৭. ভেনেজুয়েলা— হুগো চ্যাভেজের মৃত্যুর পর এখন ভয়ঙ্করভাবে আর্থিক মন্দার সামনে এই দেশ। একদিকে নেতা এবং অভিজাত সমাজের দুর্নীতি, এবং বিশ্ব বাজারে তেলের দাম পড়ে যাওয়া— এই দু’য়ের প্রভাবে ভেনেজুয়ালার বুকে আরও আষ্টে-পৃষ্ঠে বসেছে দুর্নীতি।

৮. লিবিয়া— গদ্দাফির পতনের পর এখনও হিংসায় বিধ্বস্ত এই দেশ। গদ্দাফি এবং তাঁর পরিবারের দুর্নীতিতে এক্কেবারে নিঃশেষ হয়েছিল লিবিয়া। কিন্তু, তাঁর জায়গায় আজ যাঁরা লিবিয়াকে চালাচ্ছেন তাঁরাও জড়িয়ে পড়েছেন দুর্নীতির জালে।

৯. ইরিট্রেয়া— লোহিত সাগরের কোল ঘেষে থাকা একটা ছোট্ট দেশ। কিন্তু, দুর্নীতির প্রথম দশে এই দেশেরও নাম আছে।

১০. দক্ষিণ সুদান— আরও এক সুদান। দুর্নীতি এখানেও প্রধান এবং মূল বিষয়।- এবেলা






মন্তব্য চালু নেই