মেইন ম্যেনু

বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ এয়ারলাইন্সের তালিকায় ৩ নম্বরে এয়ার ইন্ডিয়া!

২০১৬ সালে বিমান পরিষেবায় বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ এয়ারলাইন্সের তালিকায় তিন নম্বরে স্থান পেয়েছে ভারতের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান এয়ার ইন্ডিয়া।

অ্যাভিয়েশন ইনসাইটস কোম্পানি ‘ফ্লাইট স্ট্যাটস’ প্রতিবছর বিশ্বের সব আন্তর্জাতিক এয়ারলাইন্সের কর্মক্ষমতার ওপর প্রতিবেদন তৈরি করে। প্রতিবেদনে ওই তালিকা প্রকাশ করা হয়। খারাপ পরিষেবার বিচারে শতাংশের হিসেবে সবচেয়ে কম নম্বর পেয়েছে যেসব প্রতিষ্ঠান, তারাই পরিষেবায় এগিয়ে।

বিশ্বের বিভিন্ন বিমান সংস্থার কাছ থেকে তথ্য নিয়ে তৈরি করা হয়েছে এই প্রতিবেদন। সেখানে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে, উড়ান ওঠা-নামার নির্ধারিতসময়সূচির উপর। সেসব সংস্থার বিমান সবচেয়ে বেশি দেরি করেছে, তাদের পরিষেবার মান নীচে। সময়সূচি ছাড়াও ফ্লাইট ট্র্যাকিং, র‌্যাডার সার্ভিস, বিমান অবতরণের সময় – সবকিছুর আলোকেই ওই প্রতিবেদনে তালিকা করা হয়েছে বলে ফ্লাইটস্ট্যাটস-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

২০১৬ সালে সেরা পারফরম্যান্সের বিচারে শীর্ষে রয়েছে নেদারল্যান্ডসের বিমান সংস্থা ‘কেএলএম’ বা রয়্যাল ডাচ এয়ারলাইন্স। এই প্রতিষ্ঠানটি পেয়েছে ১১.৪৭ শতাংশ নম্বর। আর সবচেয়ে খারাপ এয়ারলাইন্সের মধ্যে এক নম্বরে রয়েছে ইসরায়েলের ‘এল আল’। এই ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠানটি ৫৬ শতাংশ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। বহুদিন ধরে লাভের মুখ না দেখা এয়ার ইন্ডিয়া পেয়েছে ৩৮.৭১ শতাংশ। তিন নম্বরে রয়েছে ভারতের এই রাষ্ট্রায়ত্ব প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ পরিষেবার ১০টি এয়ারলাইন্সের তালিকা –

১০। হাইনান এয়ারলাইন্স – ৩০.২ শতাংশ
৯। কোরিয়ান এয়ার – ৩১.৭৪ শতাংশ
৮। এয়ার চায়না – ৩২.৩৭ শতাংশ
৭। হংকং এয়ারলাইন্স – ৩৩.৪২
৬। চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্স – ৩৫.৮ শতাংশ
৫। এশিয়ানা এয়ারলাইন্স – ৩৭.৪৬ শতাংশ
৪। ফিলিপিন এয়ারলাইন্স – ৩৮.৩৩ শতাংশ
৩। এয়ার ইন্ডিয়া – ৩৮.৭১ শতাংশ
২। আইসল্যান্ডএয়ার – ৪১.০৫ শতাংশ
১। এল আল – ৫৬ শতাংশ
​সূত্র: আইএএনএস, এনডিটিভি।






মন্তব্য চালু নেই