মেইন ম্যেনু

বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক দশটি শহর!

কোন শহর সবচেয়ে বেশি বিপজ্জনক? খুন-রাহাজানি যদি মানদণ্ড হয়, তবে সেই হিসেবে সবচেয়ে এগিয়ে আছে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাস৷ প্রথম ৫০টি বিপজ্জনক শহরের তালিকায় এশিয়া বা ইউরোপের কোনো শহর নেই৷

যে শহরে প্রতিদিন অন্তত ৩২ জন খুন হয়

ওয়ার্ল্ডঅ্যাটলাস ডটকম বিশ্বের প্রায় সব বিষয়েই পরিসংখ্যান এবং তুলনামূলক প্রতিবেদন প্রকাশ করে৷ তাদের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক শহর হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাসের নাম৷ বলা হয়েছে, সে শহরে প্রতি বছর ১ লক্ষ মানুষের মধ্যে অন্তত ১১ হাজার ৯৮৭ জন খুন হয়৷ অর্থাৎ প্রতিদিন ১ লাখের মধ্যে গড়ে খুন হয় ৩২ জনেরও বেশি মানুষ৷

পাখির শহর, মানুষ হত্যার শহর

মধ্য অ্যামেরিকার দেশ হন্ডুরাস৷ সে দেশের স্যান পেড্রো সুলা শহর ‘পাখির শহর’ নামেও পরিচিত৷ সেই শহরে সন্ত্রাসীরা পাখির মতোই গুলি করে মানুষ হত্যা করে৷ নইলে কোনো শহরে বছরে এক লাখের মধ্যে ১১ হাজার ১০৩ জন খুন হতে পারে!

এল সালভাদরের রাজধানীও ‘কুখ্যাত’

মধ্য অ্যামেরিকার সবচেয়ে ছোট দেশ এল সালভাদরের রাজধানী স্যান সালভাদরও খুন-রাহাজানির জন্য কুখ্যাত৷ স্যান সালভাদরে বছরে এক লাখে খুন হয় ১০ হাজার ৮৫৪ জন৷

মেক্সিকোর আকাপুলকোও রীতিমতো ত্রাসের রাজত্ব

মেক্সিকোর বন্দর নগরী আকাপুলকোর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুব খারাপ৷ প্রতি বছর সেখানে এক লাখে গড়ে খুন হয় ১০ হাজার ৪৭৩ জন৷

ভেনিজুয়েলা আর হন্ডুরাসের আরো শহর

ভেনিজুয়েলা আর হন্ডুরাসে সার্বিকভাবেই খুন-রাহাজানির মাত্রা অনেক বেশি৷ তাই সবচেয়ে বিপজ্জনক ৫০টি শহরের তালিকায় পঞ্চম ও সপ্তম স্থানে রয়েছে ভেনিজুয়েলার মাতুরিন এবং ভ্যালেন্সিয়া৷

ষষ্ঠ স্থানে এসেছে হন্ডুরাসের ডিস্ট্রিটো সেন্ট্রালের নাম৷ মাতুরিনে প্রতি বছর ১ লাখে ৮ হাজার ৬৪৫ জন, ডিস্ট্রিটো সেন্ট্রালে ৭ হাজার ৩৫১ জন এবং ভ্যালেন্সিয়ায় ৭২৩১ জন খুন হয়৷

কলম্বিয়া আর দক্ষিণ আফ্রিকাও পিছিয়ে নেই

অষ্টম থেকে দশম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে কলম্বিয়ার পালমিরা, দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউন এবং কলম্বিয়ার আরেক শহর ক্যালি৷ শহর তিনটিতে ১ লাখ মানুষের মধ্যে প্রতি বছর খুন হয় যথাক্রমে ৭ হাজার ৮৮, ৬ হাজার ৫৫৩ ও ৬ হাজার ৪২৭ জন৷

বাংলাদেশ এবং এশিয়ার অন্যান্য দেশের জন্য ‘স্বস্তি’

বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে জনমনে অসন্তোষ, উদ্বেগ দীর্ঘদিনের৷ উদ্বেগটা ক্রমশ যেন বাড়ছে৷ প্রতিদিনই থাকে হত্যার খবর৷ তবে খুন-রাহাজানির পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে তৈরি বিশ্বের সবচে-ডিডব্লিউ






মন্তব্য চালু নেই