মেইন ম্যেনু

বিশ্বে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর বলছে, সংঘাতের কারণে বিশ্বে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। গত বছরের শেষের দিকে সাড়ে সাড়ে ছয় কোটিরও বেশি মানুষ শরণার্থী, আশ্রয়প্রার্থী অথবা অভ্যন্তরীণ কারণে গৃহহীন হয়ে পড়েছে।

অন্যান্য সময়ের চেয়ে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা বছরে ৫০ লাখ বেড়েছে। অর্থাৎ বিশ্বে ১১৩ জনের মধ্যে একজন গৃহহীন হয়েছে। ইউএনএইচসিআরের প্রধান বলেছেন, শরণার্থী সংকট মোকাবেলায় ইউরোপ লড়াই করছে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম শরণার্থী স্রোত সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়া নিয়ে ইউরোপের অবস্থান ও কঠোর নীতির সমালোচনা চলছে।

বিশ্ব শরণার্থী দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার ইউএনএইচসিআর এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে, প্রথমবারের মতো বিশ্বে শরণার্থীর সংখ্যা ৬ কোটি ছাড়িয়ে গেছে। এদের অর্ধেকেরও বেশি যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া, আফগানিস্তান ও সোমালিয়ার।

জাতিসংঘ বলছে, শরণার্থী সংকট ইউরোপের বড় ধরনের ইস্যুতে পরিণত হলেও, ৮৬ শতাংশ শরণার্থী নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশে আশ্রয় নিয়েছে। এছাড়া আশ্রয়ের সর্বোচ্চ আবেদন জমা পড়েছে জার্মানিতে।

ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) বলছে, গত বছর সমুদ্রপথে ইউরোপে ১০ লাখ ১১ হাজার সাতশ শরণার্থী পৌঁছেছে। স্থলপথে পৌঁছেছে অন্তত ৩৫ হাজার শরণার্থী। তবে অন্যান্য সংস্থা বলছে, এর পরিমাণ আরো বেশি। শরণার্থীদের আশ্রয় প্রার্থনার শীর্ষে রয়েছে উত্তর ইউরোপের সমৃদ্ধশালী দেশ জার্মানি ও সুইডেন।






মন্তব্য চালু নেই