মেইন ম্যেনু

বিশ্ব ইজতেমায় চার মুসল্লির মৃত্যু: মৃত্যুর পর মরদেহগুলো যা করা হলো

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত চার মুসল্লি মারা গেছেন। ইজতেমা আয়োজক কমিটির সদস্য মাওলানা মোহাম্মদ মামুন জানান,বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে চার মুসল্লি মারা গেছেন।

এর মধ্যে বুধবার ১, বৃহস্পতিবার ২ ও শুক্রবার সকালে ১ জন মুসল্লী মারা যান। মৃত্যুর পর ইজতেমা ময়দানেই তাদের নামাজে জানাজা শেষে মরদেহ আত্মীয়-স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। খবর বাসসের

টঙ্গীর তুরাগ তীরে শুক্রবার ফজরের নামাজের পর ভারতের মাওলানা ওবায়দুল্লাহ খুরশেদের আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ৫২তম বিশ্ব ইজতেমার এ পর্ব।

তিন দিনব্যাপি এ বিশ্ব ইজতেমায় আখলাক, ঈমান ও আমলের উপর বয়ান করবেন তাবলিগ জামাতের শীর্ষস্থানীয় মুরুব্বীরা। আর এ বয়ান শুনতেই তুরাগপাড়ে দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লিরা অবস্থান করছেন।

মাওলানা মামুন জানান, এবারের ইজতেমার প্রথম পর্বে ১৭টি জেলার জামাতবদ্ধ মুসল্লিরা ময়দানের ২৭টি খিত্তায় (জেলাওয়ারি) অবস্থান নিয়েছেন। দ্বিতীয় পর্বে ১৬টি জেলার মুসল্লিরা ২৯টি খিত্তায় অবস্থান নেবেন। বাকি ৩১ জেলার মুসল্লিরা আগামী বছর ইজতেমায় অংশ নেবেন।

প্রথম ধাপে অংশ নেয়া ১৭টি জেলা হচ্ছে- ঢাকা, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, মৌলভীবাজার, ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, মানিকগঞ্জ, জয়পুরহাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রংপুর, গাজীপুর, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান, গোপলগঞ্জ, শরীয়তপুর, সাতক্ষীরা ও যশোর।

আগামী রোববার জোহরের নামাজের আগে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে প্রথম পর্ব। চারদিন পর ২০ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে দ্বিতীয় পর্ব। ২২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ওই পর্বও শেষ হবে।

ইজতেমা এলাকায় পাঁচ স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এবারই প্রথম ইজতেমার চারদিক এবং বাইরে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই