মেইন ম্যেনু

বিশ্ব শরণার্থী দিবস আজ

‘আয়লান কুর্দি’ নামে সিরিয় শিশুর সেই নিথর মৃত দেহের চিত্র কাঁদিয়েছে সারা বিশ্বকে। সে দেখিয়ে দিয়ে গেছে শরণার্থীদের করুন দশা। বিশ্বে এখন সাড়ে ছয় কোটি মানুষ শরণার্থী এমনটাই বলছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর)। এই অবস্থাতেই সারাবিশ্বে আজ (২০ জুল) পালিত হচ্ছে বিশ্ব শরণার্থী দিবস।

২০০০ সালের ৪ ডিসেম্বর জাতিসংঘ সর্বসম্মতি ক্রমে এ দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। ২০০১ সালের ২০ জুন থেকে বিশ্বে এ দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। ১৯৫১ সালে অনুষ্ঠিত শরণার্থীদের অবস্থান নির্ণয় বিষয়ক একটি কনভেনশনের ৫০ বছর পূর্তি হয় ২০০১ সালে। যে কারনে ঐ দিনটিকেই শরণার্থী দিবস পালনের প্রস্তাব করা হয়।

সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ এবং ইরাকে আইএস ও সরকারি বাহিনীর যুদ্ধসহ বেশকিছু কারণে বিশ্বে শরণার্থীর সংখ্যা এখন সর্বকালের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

এদিকে এরই মধ্যে ভূমধ্যসাগরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে পাড়ি দিয়েছে ১০ লাখেরও বেশি শরণার্থী। আর এই সাগর পাড়ি দেওয়ার সময় নৌকাডুবিতে চলতি বছরের গত পাঁচ মাসে প্রাণ হারিয়েছে আড়াই হাজারের বেশি মানুষ ইউএনএইচসিআর এর হিসেব মতে, ‘গত বছরের প্রথম পাঁচ মাসে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে প্রাণ হারিয়েছিল ১ হাজার ৮৫৫ জন’।

উল্লেখ, অর্গানাইজেশন অফ আফ্রিকান ইউনিটি (ওএইউ) এর উদ্যোগে ২০০০ সাল পর্যন্ত আফ্রিকান শরণার্থী দিবস নামে একটি দিবস বিভিন্ন দেশে পালিত হয়ে আসছিলো। পরবর্তীকালে ২০ জুনকে আফ্রিকান শরণার্থী দিবস-এর পরিবর্তে আন্তর্জাতিকভাবে শরণার্থী দিবস হিসেবে পালন করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই