মেইন ম্যেনু

বিষণ্ণতায় ভোগার যে অদ্ভুত ৬টি কারণ আপনি জেনেও জানেন না

খুব বিষণ্ণ লাগছে? অবহেলা করবেন না একেবারেই। বিশেষ করে যদি আপন কাউকে অনেক বেশী বিষণ্ণ হতে দেখেন তাহলে তো একেবারেই নয়। কারণ এই বিষণ্ণতাই যখন মারাত্মক পর্যায়ে পৌছায় তখন মানসিক ভারসাম্য নষ্ট হতে পারে, আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারেন অনেকেই। কিন্তু কেন মানুষ বিষণ্ণতায় ভোগেন তা জানেন কি? এমন সব অদ্ভুত কারণে মানুষ বিষণ্ণতায় ভোগেন যা আপনি হয়তো ধারনাই করতে পারবেন না। আজকে জেনে নিন এমনই কিছু অদ্ভুত কারণ যা আপনি জেনেও জানেন না।

১) গ্রীষ্মকালের আবহাওয়ার কারণে

খুব অবাক হচ্ছেন? অবাক হলেও এই অদ্ভুত ব্যাপারটি ঘটে মানুষের মধ্যে। একে বলা হয় সিজনাল অ্যাফেক্টিভ ডিজঅর্ডার। ডঃ অ্যালফ্রেড লেউই, অরেগন হেলথ অ্যান্ড সাইন্স ইউনিভার্সিটির সাইক্রিয়েট্রির প্রোফেসর এই রোগ সম্পর্কে বলেন, ‘ঋতু পরিবর্তনের সাথে মানিয়ে নিতে না পারার কারণে এই ধরণের বিষণ্ণতায় ভোগেন অনেকেই’। মূলত মস্তিষ্কের কেমিক্যাল ভারসাম্য নষ্ট ও মেলাটোনিন হরমোনের কারণে এই সমস্যাটি দেখা যায়।

২) থাইরয়েড সমস্যা

থাইরয়েডের সমস্যার কারণে দৈহিক অনেক সমস্যার শিকার হন অনেকে। কিন্তু আপনি জানেন কি, এই থাইরয়েড সমস্যার কারণে বিষণ্ণতাতেও ভুগতে পারেন অনেকেই? থাইরয়েডের সমস্যার কারণে হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হওয়ার কারণেই অনেকের মধ্যে দেখা যায় এই বিষণ্ণতার সমস্যা।

৩) ঘুম কম হওয়া বা না হওয়া

ঘুম কম হওয়া বা না হওয়ার প্রভাব যতোটা দেহের উপরে পড়ে ঠিক ততোটাই বরং তার চাইতে খারাপ প্রভাব পড়ে মনের উপরে। এর কারণেই বাড়তে থাকে বিষণ্ণতা। Center for Circadian Medicine, সারাসোটা, ফ্লায়ের ডিরেক্টর ও ‘দ্য পাওয়ার অফ রেস্ট’ এর লেখক ডঃ ম্যাথিউ এ্যাডলান্ড বলেন, ‘যখন মানুষ ঘুমাতে পারেন না বা ঘুমান না তখন মস্তিষ্কের কোষগুলোর ক্ষতিপূরণ হতে পারে না এবং মস্তিষ্ক কাজ করা বন্ধ করে দেয় এবং তা ধীরে ধীরে বিষণ্ণতায় পরিণত হতে থাকে’।

৪) অতিরিক্ত ফেসবুক ব্যবহার

শুনে অবাক হয়ে হেসে উড়িয়ে দেবেন না একেবারেই। কারণ গবেষণায় দেখা যায় যারা অতিরিক্ত ফেসবুক এবং অন্যান্য যোগাযোগের মাধ্যম বেশী ব্যবহার করেন তারা এর দ্বারা এতোটাই নিয়ন্ত্রিত হয়ে যান যে অন্যের জীবনের সুখ দেখে নিজেকে দুঃখী ভাবা শুরু করে দেন। আর এই ভাবনাই রূপ নেয় বিষণ্ণতায়।

৫) টিভি সিরিয়াল বা সিনেমা শেষ হয়ে যাওয়া

২০০৯ সালের একটি গবেষণায় দেখা যায় পছন্দের কোনো টিভি সিরিয়াল বা সিনেমা শেষ হয়ে গেলে মানুষ অনেক বিষণ্ণ বোধ করতে থাকেন। ওহিও স্টেট ইউনিভার্সিটির কমিউনিকেশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রোফেসর এমিলি বলেন, ‘মানুষ পছন্দের সিরিয়াল বা মুভিকে নিজের সঙ্গীর মতো করেই দেখতে থাকেন, যখন তা শেষ হয়ে যায় তখন একাকীত্ব ভর করে এবং কী করবো এর পরে তা ভেবে বিষণ্ণতায় ভোগেন, যার মধ্যে অনেকে সুইসাইড করার চিন্তাও করেন’।

৬) খাদ্যতালিকায় মাছ না থাকা

মাছে ভাতে বাঙালি হওয়ার কারণে হয়তো আমাদের দেশের অনেকেই এই সমস্যায় পড়বেন না, কিন্তু আসলেই কিন্তু মাছ না খাওয়ার কারণে অনেকেই বিষণ্ণতায় ভোগেন। এর কারণ আর কিছুই নয় দেহে ওমেগা৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের অভাবের কারণেই এই সমস্যাটি হয়ে থাকে। এই বিশেষ ফ্যাটি অ্যাসিডটি নিউরোট্রান্সমিটার রেগুলেট করে সেরিটেনিন উৎপন্ন করে প্রফুল্ল করে মনকে।

সূত্র: foxnews.com






মন্তব্য চালু নেই