মেইন ম্যেনু

বিসিবির নতুন সিদ্ধান্তে এবার অধিনায়ক মুমিনুল, সহ-অধিনায়ক নাসির

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডই নিয়েছেন এই সিদ্ধান্ত। এবার অধিনায়ক মুমিনুল, সহ-অধিনায়ক নাসির। ঘরের মাঠে এশিয়ার আট দেশ নিয়ে বসতে যাওয়া ইমার্জিং এশিয়া কাপের বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দেবেন মুমিনুল হক।

তার ডেপুটির দায়িত্ব বর্তেছে নাসির হোসেনের কাঁধে। অনূর্ধ্ব-২৩ পর্যায়ের এই টুর্নামেন্টে টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলো চারজন করে তেইশোর্ধ্ব ক্রিকেটার খেলাতে পারবে। বাকি চার দেশের জাতীয় দল অংশ নেবে। কক্সবাজারে টুর্নামেন্ট শুরু হবে ২৭ মার্চ।

শ্রীলঙ্কায় টেস্ট খেলে ফেরা মুমিনুল ও জাতীয় দলের বাইরে থাকা অলরাউন্ডার নাসিরের সঙ্গে স্কোয়াডে অন্য দুই তেইশোর্ধ্ব ক্রিকেটার পেস-অলরাউন্ডার আবুল হাসান রাজু এবং ওপেনিং ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিথুন। সেইসঙ্গে শততম টেস্ট জিতে ফেরা মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে মঙ্গলবার ১৫ সদস্যের ইমার্জিং টাইগার দল ঘোষণা করেছে বিসিবি।

ফতুল্লায় প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করা আজমীর আহমেদ ইমার্জিং স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন। মিরাজের নেতৃত্বে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলা নাজমুল হোসেন শান্ত ও পেস-অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনও আছেন দলে। আছেন বর্তমান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক সাইফ হাসান ও সহ-অধিনায়ক আফিফ হোসেন ধ্রুব।

মুমিনুল জাতীয় দলের জার্সিতে ওয়ানডে খেলার সুযোগ পান না। বাংলাদেশের শততম টেস্টটিও খেলা হয়নি তার। দেশে ফিরে ইমার্জিং কাপে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেলেন এই

বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। সেখানে নাসির গত বছরের অক্টোবরে জাতীয় দলের জার্সিতে শেষবার নেমেছিলেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চট্টগ্রামের ওয়ানডেটি খেলার পর ঘরোয়া ক্রিকেটে রানেই আছেন।

২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঢাকার ওয়ানডেতে খেলেছিলেন আবুল হাসান। পরে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ মিলছিল না। এবার ইমার্জিং কাপে দারুণ কিছু করে দেখানোর পালা এই ২৪ বর্ষী অলরাউন্ডারের। মিথুন ২০১৬ সালে ভারতের মাটিতে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলেছেন। টাইগারদের জার্সিতে শেষ ওয়ানডেটি খেলেছেন ২০১৪ এর জুনে ঢাকায় ভারতের বিপক্ষে।

সিনিয়র এই চার ক্রিকেটার ছাড়াও ইমার্জিং কাপের দলে থাকাদের মধ্যে নজর থাকবে আজমীর আহমেদের দিকে। ঘরোয়া ক্রিকেটে পঞ্চাশ ওভারের ম্যাচে দেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ান তিনি। গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে উদয়াচল ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে ১৬৮ বলে অপরাজিত ২২২ রানের ইনিংস খেলে সবাইকে চমকে দেন অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের এই ওপেনার।

সাইফ ও আফিফের দিকেও থাকবে নজর। সম্ভাবনাময় দুই ক্রিকেটার রানেই আছেন। ঘরোয়া ক্রিকেট লিগ বিসিএলে অভিষেকেই আফিফ করেছেন সেঞ্চুরি। এক ম্যাচ পর সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন আরেকটি। তিন ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি নিয়ে শেষ করেছেন এবারের মৌসুম।

বিসিএলের আগে এনসিএল খেলতে নেমেই সেঞ্চুরি পান সাইফ। পরের ম্যাচে করেন ডাবল সেঞ্চুরি। আর বিসিএলে পেয়েছেন তিন ফিফটি। বিপিএল দিয়ে আলোয় আসার পর জাতীয় দলের জার্সিতেও খেলেছেন। কিন্তু জায়গাটা পাকা করতে পারেননি আবু হায়দার রনি। এই পেসারের সামনে সুযোগ নিজেকে ইমার্জিং কাপে মেলে ধরার।

প্রস্তুতি নিতে বাংলাদেশ দল টুর্নামেন্টের ভেন্যু কক্সবাজারের উদ্দেশে রওনা হয়েছে মঙ্গলবার সকাল ১০টায়। এশিয়ার অন্য সাতটি দেশ ২৫ মার্চ থেকে আসতে শুরু করবে। টুর্নামেন্টের প্রথম দিনেই চার ভেন্যুতে গড়াবে চারটি ম্যাচ। কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রথম প্রতিপক্ষ হংকং। ২৮ মার্চ নেপাল ও ৩০ মার্চ পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে স্বাগতিকরা। গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের সবগুলো ম্যাচই শেখ কামাল স্টেডিয়ামে।

‘এ’ গ্রুপে রয়েছে ভারত, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও মালয়েশিয়া। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম ও এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে হবে বাকি ম্যাচগুলো। আর শুধুমাত্র ৩ এপ্রিলের ফাইনাল ম্যাচটি হবে দিবা-রাত্রির।

ইমার্জিং কাপে বাংলাদেশ দল:
মুমিনুল হক (অধিনায়ক), নাসির হোসেন (সহ-অধিনায়ক), মোহাম্মদ সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, ইয়াসির আলি চৌধুরী, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোহাম্মদ মিথুন, আবুল হাসান রাজু, আবু হায়দার রনি, আজমীর আহমেদ, রাহাতুল ফেরদৌস, আফিফ হোসেন ধ্রুব, সালমান হোসেন, নাসুম আহমেদ।

অপেক্ষমান তালিকা: শফিউল ইসলাম, জাকির হাসান, তানবীর হায়দার, ইয়াসিন আরাফাত মিশু।






মন্তব্য চালু নেই