মেইন ম্যেনু

বিসিবির হাতে নায়ক শাকিব খানের ভাগ্য!

বাংলাদেশের জনপ্রিয় খেলাধুলার একটি ক্রিকেট। দিন দিন এই খেলায় বাংলাদেশের সফলতা যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে জনপ্রিয়তাও। আর দর্শক জনপ্রিয়তার বিষয়টি মাথায় রেখেই নির্মাতা সাফি উদ্দীন সাফি নির্মাণ করেছেন ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেমকাহিনী-২’। এতে রূপালি পর্দায় ক্রিকেটার রূপে হাজির হচ্ছেন চিত্রনায়ক শাকিব খান।

ইতিমধ্যে ছবির সব আয়োজন সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পেলেই বড় পর্দায় নায়ক শাকিব খান হাজির হবেন ক্রিকেটার হিসেবে। কিন্তু চলচ্চিত্র সেন্সরবোর্ড আরও একটু বুঝে নিতে চায়, ক্রিকেটার হিসেবে শাকিব কতোটা ফিট। এই জন্য সেন্সর বোর্ডের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরামর্শ চাওয়া হয়েছে।

চলচ্চিত্র সেন্সরবোর্ডের ডাকে সাড়াও দিয়েছে বিসিবি। বুধবার দুপুরে ক্রিকেটার শাকিব খানকে দেখতে যাওয়ার কথা বিসিবির দুই কর্মকর্তার। তারা গ্রিন সিগনাল দিলেই বড় পর্দায় ক্রিকেটার রূপে আসবেন শাকিব।

সিনেমাটিতে চিত্রনায়ক শাকিব খান অভিনয় করেছেন ক্রিকেটার চরিত্রে। অন্যদিকে, জয়া আহসান অভিনয় করেছেন সাংবাদিকের চরিত্রে। সিনেমার দৃশ্যে শাকিব খানের শরীরে থাকছে বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের জার্সি। এতে আরও অভিনয় করেছেন ওমর সানি, ইমন, মৌসুমী হামিদ প্রমুখ।

এখানেই চলচ্চিত্র সেন্সরবোর্ড বিসিবি’র পরামর্শ চেয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সুনাম ক্ষুন্ন হয়, এমন কিছু সিনেমাটিতে আছে কীনা তা খতিয়ে দেখবেন বিসিবির দুই কর্মকর্তা। বুধবার বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস ও মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম সিনেমাটি দেখবেন। এরপরই সিনেমাটির সেন্সর ছাড়পত্রের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

চলচ্চিত্র সেন্সরবোর্ডের সদস্য মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘সিনেমাটিতে জাতীয় ক্রিকেট দলকে দেখানো হয়েছে। এর নায়ক শাকিব খানের গায়ে রয়েছে সাকিব আল হাসানের জার্সি। যেহেতু ক্রিকেট বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। তাই আমরা চেয়েছি বিসিবি থেকে কেউ এসে ছবিটি দেখুক। তাদের আপত্তি না থাকলে সেন্সর বোর্ডও কোনো আপত্তি করবে না। তবে অবশ্যই বিসিবির মতামত লাগবে।






মন্তব্য চালু নেই